প্রতিটি বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী ও পুলিশ কর্মীরা সজাগ প্রহরার কাজে। ছবি: ইন্টারনেট

খোলাবার্তা২৪ ডেস্ক : পশ্চিমবঙ্গের ভবানীপুর উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে সকাল আটটা থেকে। কড়া নিরাপত্তার মধ্যে সেখানে ভোট গ্রহণ চলছে ।

ভবানীপুর খুব একটা বড় বিধানসভা কেন্দ্র নয়। কিন্তু যেহেতু মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সেখানে লড়ছেন এবং গোটা রাজ্যের নজর এই কেন্দ্রের দিকে, তাই নির্বাচন কমিশন কোনো ঝুঁকি নেয়নি।

সাড়ে তিন হাজার কেন্দ্রীয় বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। সাথে আছে কলকাতা পুলিশ। প্রতিটি বুথে রয়েছে সিসিটিভি ক্যামেরা। আছেন প্রচুর ভোট পর্যবেক্ষক।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সকালে ভোট দিতে বেরোননি। তিনি পরের দিকে ভোট দেবেন বলে সূত্র জানাচ্ছে। সাধারণত, নিজের কেন্দ্রে ভোট হলে মমতা বাড়িতেই থাকেন। এদিনও এখনো পর্যন্ত তিনি বাড়িতেই আছেন।

এই আসনের উপনির্বাচনে যার উপরে ভোটের দায়িত্ব দিয়েছেন মমতা, রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম চেতলা অফিসে বসে সবকিছুর উপর নজর রাখছেন। বুথে ঘুরছেন তৃণমূলের কোঅর্ডিনেটররা।


সকাল থেকে বুথে ঘুরছেন বিজেপি প্রার্থী প্রিয়ঙ্কা টিবরেওয়াল। ছবি: ইন্টারনেট

কিন্তু বাকি দুই প্রতিদ্বন্দ্বী বিজেপি-র প্রিয়ঙ্কা টিবরেওয়াল এবং সিপিএমের শ্রীজীব বিশ্বাস সকাল থেকে ঘুরছেন। প্রিয়ঙ্কা টিবরেওয়াল মিত্র ইনস্টিটিউশনের বুথ থেকে বেরিয়ে অভিযোগ করেছেন, ১২৬ নম্বর বুথে ইভিএমে কারচুপি হয়েছে। এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে নির্বাচন কমিশন। তারা জানিয়েছে, মক পোলের জন্য বুথে ভোট শুরু করতে কিছুটা দেরি হয়েছে।

প্রিয়ঙ্কা আপত্তি জানিয়েছেন, বুথের কাছে দোকান খুলে রাখা নিয়েও। তার দাবি, ১৪৪ ধারা জারি আছে। সেখানে দোকান কী করে খোলা থাকে? তবে সিপিএমের শ্রীজীব বলেছেন, এটা মানুষের রুটি-রুজির প্রশ্ন। তাই দোকান খোলা থাকলে তাদের আপত্তি নেই।

সকাল থেকে ভোটপর্ব চললেও এখনো বুথে লাইন নেই। মানুষ আসছেন, ভোট দিয়ে চলে যাচ্ছেন। লম্বা লাইনের গল্প এখনো নেই, তবেবেলার দিকে সেটা হতে পারে।