আব্দুর রাজ্জাক, ঘিওর (মানিকগঞ্জ) : মানিকগঞ্জের ঘিওরে ষাটোর্ধ্বদের নিয়ে ফুটবল খেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
আজ শুক্রবার বিকেলে উপজেলার বালিয়াখোড়া ইউনিয়নের পুখুরিয়া ঈদগাহ মাঠে এই খেলা দেখতে হাজারো মানুষের সমাগম ঘটে।

খেলোয়াড়দের প্রত্যেকের বয়স ৬০ বছরের ওপরে। বয়সের ভারে অনেকেই ন্যুব্জ প্রায়। এ বয়সে খেলার সঙ্গে সম্পর্ক মানায় না। খেলাকে সবাই একটা নির্দিষ্ট বয়সের ফ্রেমে বাঁধেন। বৃদ্ধ বয়সে এসে খেলায় মেতে উঠলেন প্রবীণরা।

বার্ধক্যের কারণে খেলা অনেকটা এলোমেলো হলেও বয়সের বাধা জয় করার জন্যই অগ্রজরা খেলায় মেতে উঠে। যদিও এ খেলা প্রতিযোগিতামূলক না হলেও অগ্রজদের একঘেঁয়েমি এবং মানসিকতার পরিবর্তনের জন্য এ খেলার উদ্যোগ নেন পুখুরিয়া স্টার ক্লাব। খেলা শেষে প্রীতি ভোজের জন্য বিজয়ী দলকে একটি ছাগল পুরস্কার হিসেবে প্রদান করা হয়।

এ ব্যতিক্রমই খেলা দেখতে পুখুরিয়া ঈদগা মাঠে উৎসুক মানুষের ভিড় লক্ষ্য করা গেছে।

প্রবীণদের শ্রদ্ধা জানাতে আয়োজন করা হয় প্রবীণ প্রীতি ফুটবল টুর্নামেন্ট। ষাটোর্ধ্ব খেলোয়াড় বয়সে ন্যুব্জ হলেও খেলার মাঠে প্রতিদ্বন্দ্বীতার কোনো ঘাটতি ছিল না। বয়সের সঙ্গে খেলার মিল না থাকলেও রেফারির বাঁশির শব্দ আর ফুটবলের পিছু ছাড়ছেন না কেউই।

প্রবীণদের এমন ব্যতিক্রমই খেলার আয়োজন পুখুরিয়া স্টার ক্লাবের সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান মাতুব্বর বলেন, প্রবীণদের একটু আনন্দ দিতে এবং তাদের মানসিকতার পরিবর্তন আনতে তাদের নিয়ে ফুটবল খেলার আয়োজন করেছি।

খেলা পরিচালনা ও পুরস্কার বিতরণ করেন আয়োজক সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, ইবতি আরিফ, আমেরিকা প্রবাসী মোঃ শামীম, এনামুল হক শিকদার প্রমুখ।

বালিয়াখোড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী আওয়াল খান বলেন, ফুটবল খেলা গ্রামীণ ঐতিহ্য। বয়সের ভারে ক্রমান্বয়ে এ খেলা থেকে এড়িয়ে যেতে হয়। বৃদ্ধ বয়সে এসে এ খেলার প্রতি মনোনিবেশ থাকলেও শরীরের সঙ্গে মানায় না। তবে, প্রবীণদের ফুটবল টুর্নামেন্ট সত্যিকার অর্থে ব্যতিক্রম।