ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি : আগামীকাল বুধবার ব্রাহ্মণবাড়িয়ার তিনটি উপজেলার চারটি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। চারটি ইউনিয়নের মধ্যে রয়েছে সদর উপজেলার নাটাই দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদ, কসবা উপজেলার মূলগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ ও বাঞ্ছারামপুর উপজেলার দরিয়াদৌলত ইউনিয়ন পরিষদ ও আইয়ূবপুর ইউনিয়ন পরিষদ।

চারটি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান, সাধারণ ওয়ার্ডের সদস্য ও সংরক্ষিত মহিলা আসনের সদস্য পদে মোট ১৯৮জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ২২জন, সাধারণ ওয়ার্ডের সদস্য পদে ১৩৪জন ও সংরক্ষিত মহিলা আসনে সদস্য পদে ৪২জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

তিনটি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থীরা নৌকা মার্কা নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করলেও কসবা উপজেলার মূলগ্রাম ইউনিয়নে দলীয় প্রতিক ছাড়াই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

চারটি ইউনিয়ন পরিষদের মধ্যে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার নাটাই (দক্ষিণ) ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান পদে ০৪জন, সাধারণ ওয়ার্ডের সদস্য পদে ২৮জন ও সংরক্ষিত মহিলা আসনের সদস্য পদে ১৩জন, কসবা উপজেলার মূলগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান পদে ০৯জন, সাধারণ ওয়ার্ডের সদস্য পদে ৪৬জন ও সংরক্ষিত মহিলা আসনের সদস্য পদে ১০জন, বাঞ্ছারামপুর উপজেলার দরিয়াদৌলত ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান পদে ০৩জন, সাধারণ ওয়ার্ডের সদস্য পদে ৩৬জন ও সংরক্ষিত মহিলা আসনে সদস্য পদে ০৮জন এবং একই উপজেলার আইয়ূবপুর ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান পদে ০৬জন, সাধারণ ওয়ার্ডের সদস্য পদে ২৪জন ও সংরক্ষিত মহিলা আসনে সদস্য পদে ১১জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

চারটি ইউনিয়ন পরিষদের মধ্যে সদর উপজেলার নাটাই দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন ব্যালট পেপারে এবং বাকী তিনটি ইউনিয়নের নির্বাচন ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) অনুষ্ঠিত হবে। সদর উপজেলার নাটাই দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত ভোট গ্রহন ও অন্য তিনটি ইউনিয়নে সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে।

চারটি ইউনিয়ন পরিষদের মধ্যে সদর উপজেলার নাটাই দক্ষিণ ইউনিয়নে ৯টা কেন্দ্রে, কসবা উপজেলার মূলগ্রাম ইউনিয়নে ১০টি কেন্দ্রে, বাঞ্ছারামপুর উপজেলার দরিয়াদৌলত ইউনিয়ন পরিষদে ৯টি কেন্দ্রে ও আইয়ূবপুর ইউনিয়ন পরিষদে ৯টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে।

এদিকে সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠানের লক্ষে প্রশাসনের পক্ষ থেকে চারস্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে।

জেলা নির্বাচন অফিসার মোঃ জিল্লুর রহমান বলেন, মঙ্গলবার সকাল থেকেই নির্বাচনী এলাকার প্রতিটি কেন্দ্রে নির্বাচনের দায়িত্বরতরা নির্বাচনী সরঞ্জাম নিয়ে গেছেন। নির্বাচনে চারস্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে। প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে একজন অফিসারসহ ৫জন পুলিশ ও ১৭জন আনসার সদস্য দায়িত্ব প্রদান করবেন। প্রতিটি ইউনিয়নের ১ প্লাটুন বিজিবির সদস্য ও র‌্যাবের একটি টীম দায়িত্ব পালন করবেন। প্রতি ৩টি ইউনিয়নের জন্য পুলিশের একটি মোবাইল ও স্টাইকিং ফোর্স কাজ করবেন। এছাড়া চারটি ইউনিয়নে ৩জন জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট ও ৯জন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট দায়িত্ব পালন করবেন।