রবিউল হাসান রবি, চট্টগ্রাম ব্যুরো : চট্টগ্রামের বোয়ালখালী উপজেলার ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে বেসরকারি টেলিভিশনের দুজন সাংবাদিক আহতের পাশাপাশি গণমাধ্যমের ২টি নিজস্ব গাড়িসহ সাংবাদিক বহনকারী মোট ৮টি গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে।

বুধবার (৫ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ৯টায় এ ঘটনা ঘটে।

করলডাঙ্গা ইউনিয়নের আসাদিয়া স্কুল কেন্দ্রে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। একই ইউনিয়নের দক্ষিণ করোলডাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আবুল মনসুরের সমর্থকদের সঙ্গে আনারস প্রতীকের প্রার্থী আবদুল মান্নানের সমর্থকদের দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়।

এদিকে, হযরত শাহ বোয়ালিকালন্দ ২নম্বর ওয়ার্ডের চৌধুরী শিকদার পাড়া কেন্দ্রে প্রতিপক্ষের হামলায় টেলিফোন মার্কার স্বতন্ত্র প্রার্থী মহরম আলী (৩৫) গুলিবিদ্ধ হয়েছেন বলে জানা গেছে। পরবর্তীতে তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়। বর্তমানে তিনি চমেক হাসপাতালের ২৮ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন আছেন।

পরবর্তীতে, পুলিশ বিজিবি সদস্যদের সঙ্গে নিয়ে ঘটনাস্থলে আসেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মামনুন আহমেদ। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। এসময় সংঘর্ষের ঘটনার সাথে জড়িত ২ জনকে আটক করে বিজিবি সদস্যরা।

ভুক্তভোগী সাংবাদিকেরা বলেন, নির্বাচনী এলাকায় দুপক্ষের সংঘর্ষে অতর্কিতভাবে সংবাদ সংগ্রের কাজে আসা গণমাধ্যমের গাড়ির উপর ভাঙচুর করা হয়। এসময় আমরা সবাই নিরাপত্তার জন্য অন্যত্র সরে যাই। বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থা (বাসস) ও এটিএন নিউজের নিজস্ব গাড়িসহ সাংবাদিক বহনকারী ৬ গাড়িতে দুর্বৃত্তরা হামলা চালায়।

বোয়ালখালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবদুল করিম বলেন, করলডেঙ্গা ইউনিয়নে একটি কেন্দ্রে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকের মধ্যে সংঘর্ষের খবর পেয়ে পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে গেছে। গণমাধ্যমের বেশকিছু গাড়ি ভাঙচুর হয়েছে বলে জানতে পেরেছি।

সিইউজের ক্ষোভ
চট্টগ্রামের বোয়ালখালীতে সাংবাদিকদের বহনকারী একাধিক গাড়িতে হামলার ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে দোষীদের গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছে চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন-সিইউজে। অবিলম্বে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া না হলে কঠোর কর্মসূচি ঘোষণার হুশিয়ারি দেন সিইউজে নেতৃবৃন্দ।

বুধবার (৫ জানুয়ারি) এক বিবৃতিতে হামলার ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে দোষীদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন সিইউজে সভাপতি মোহাম্মদ আলী ও সাধারণ সম্পাদক মো. শামসুল ইসলাম।

নেতৃবৃন্দ বলেন, পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে বোয়ালখালীর করলডেঙ্গায় ভোটকেন্দ্রের সামনে যেভাবে সাংবাদিকদের গাড়িতে হামলা চালানো হয়েছে তা ন্যাক্কারজনক। ভোটকেন্দ্রের সামনে এ ধরণের হামলা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নিষ্ক্রিয় ভূমিকার কারণেই সম্ভব হয়েছে। এর দায় হামলাকারীদের প্রশ্রয়দাতা স্থানীয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দসহ প্রশাসনকে নিতে হবে।

এর আগে, বুধবার সকালে চট্টগ্রামের বোয়ালখালী উপজেলার করডেঙ্গা ইউনিয়নের আসাদিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এঘটনায় পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে বেসরকারি টেলিভিশনের দুজন সাংবাদিক আহতের পাশাপাশি বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থা (বাসস) ও এটিএন নিউজের নিজস্ব গাড়িসহ সাংবাদিক বহনকারী মোট ৮টি গাড়ি ভাঙচুর করা হয়।

এছাড়া, একই ইউনিয়নের দক্ষিণ করোলডাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্র ও হযরত শাহ বোয়ালিকালন্দ ২নম্বর ওয়ার্ডের চৌধুরী শিকদার পাড়া কেন্দ্রে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।