সোহরাব হোসেন, সিংগাইর : নির্বাচন কমিশন কর্তৃক ঘোষিত তৃতীয় ধাপের ভোট গ্রহণ ২৮ নভেম্বর। দিন যতই ঘনিয়ে আসছে শেষ মূহুর্তের প্রচারণায় জমজমাট হয়ে ওঠছে নির্বাচনী মাঠ। বিশেষ করে নতুন ভোটারদের মধ্যে উৎসবের বাড়তি আমেজ লক্ষ্য করা গেছে।

মানিকগঞ্জের সদর উপজেলার ১নং বেতিলা-মিতরা ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা ২১ হাজার ১৯০ এর মধ্যে পুরুষ ১০ হাজার ৬১৮ ও মহিলা ভোটার ১০ হাজার ৫৭২।

এ ইউনিয়নে ৩ জন চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে অ্যাডভোকেট ফারুক আহমেদ ফিলিপ (চশমা), মোঃ নাসির উদ্দিন (নৌকা) ও মোঃ আসমত আলী (আনারস) প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তিন জনই যার যার মতো ভোট প্রার্থনায় ব্যস্ত সময় পার করছেন। বেশিরভাগ নতুন ভোটার, সৎ, যোগ্য ও শিক্ষা নুরাগী একজন মানুষকে তারা জয়যুক্ত করতে চান।

ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকার ভোটারদের মধ্যে ফরহাদ হোসেন, ইউসুফ আলী, আনোয়ার হোসেন, আব্দুল মজিদ, জাহাঙ্গীর আলম ও সুরুজ মিয়াসহ অনেকেই এ প্রতিবেদককে বলেন, আমাদের ফিলিপ ভাই একজন ভালো মনের মানুষ। বিপদে-আপদে, সুবিধা-অসুবিধায় মানুষের যে কোনো প্রয়োজনে তাকে কাছে পাওয়া যায়।

বর্তমান ডিজিটাল যুগে সুবিধা বঞ্চিত এ ইউনিয়নের সার্বিক উন্নয়নের লক্ষ্যে ও সুশাসন প্রতিষ্ঠায় উনার মতো আদর্শবান একজন চেয়ারম্যান খুবই প্রয়োজন। সে হিসেবে অ্যাডভোকেট ফারুক আহমেদ ফিলিপ ভাইয়ের বিকল্প নাই। আমরা তাকে ২৮ নভেম্বর চশমা মার্কায় ভোট দিয়ে বিপুল ভোটের ব্যবধানে নির্বাচিত করব। সাধারণ ভোটারদের জরিপে ইউনিয়নের বেশিরভাগ এলাকা ঘুরে জানা গেছে, জনসমর্থনে চশমা প্রতীক অনেক এগিয়ে।

এ ব্যাপারে ১ং বেতিলা-মিতরা ইউনিয়নের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী অ্যাডভোকেট ফারুক আহমেদ ফিলিপ বলেন, আমি দীর্ঘদিন ধরে এ ইউনিয়নের জনগনের পাশে থেকে তাদের সেবক হিসেবে কাজ করেছি। আশা করি ইউনিয়নবাসী আমার পাশে আছে। আমার বিশ্বাস ২৮ নভেম্বর দুই তৃতীয়াংশ ভোট পেয়ে আমি জয়লাভ করব ইনশা-আল্লাহ।