কাজী খলিলুর রহমান, ঝালকাঠি প্রতিনিধি : ঝালকাঠির বিষখালী ও সুগন্ধা নদীর জোয়ারের পানি স্বাভাবিকের চেয়ে ৪-৫ ফুট বৃদ্ধি পাওয়ায় জেলার ৪টি উপজেলার ১৮টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে।

আজ ১০ আগষ্ট বুধবার সকাল থেকে বিষখালী ও সুগন্ধা নদীর পূর্নিমার জোঁ’র কারণে উচু জোয়ারের পানিতে এসব গ্রাম তলিয়ে যায়। গ্রামের কাঁচা ঘরবাড়ি ও রাস্তা-ঘাটের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। ফলে এসব এলাকার মানুষ দুর্বিষহ জীবন যাপন করছেন। হাঁস-মুরগি ও গবাদি পশু নিয়ে আছেন দুশ্চিন্তায়। এতে ছোটবড় পুকুরসহ অনেক মাছের ঘের ডুবে যাওয়ায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন মৎস্য চাষিরা।

এদিকে গতকাল সকাল থেকে আকাশ মেঘাচ্ছন্ন ও থেমে থেমে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হচ্ছে। নদীতে জোয়ারের পানি ৪-৫ ফুট উঁচুতে প্রবাহিত হচ্ছে।

কাঠালিয়া উপজেলার বিষখালী নদীর অংশে বেরিবাধ না থাকায় জোয়ারের পানিতে উপজেলা পরিষদ ভবন, ইউএনও’র অফিস ও বাসভবন সহ ১১টি গ্রাম পানিতে প্লাবিত হয়েছে। কাঠালিয়া, আউরা, চিংড়াখালী, জয়খালী, কচুয়া, শৌলজালিয়া, আওরাবুনিয়া, আমুয়া, মশাবুনিয়া গ্রামের মৎস্য এবং কৃষির ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এসব গ্রামের কাঁচা রাস্তা ও ঘর-বাড়ি প্লাবিত হয়ে মারাত্মক জন দূর্ভোগ সৃষ্টি হয়েছে।

অপরদিকে, ঝালকাঠি, নলছিটি ও রাজাপুরের নিম্নাঞ্চলে ৭টি গ্রাম প্লাবিত হয়। এসব এলাকার মৎস্য ও কৃষির ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েন স্থানীয়রা। রান্না ঘরে পানি ঢুকে রান্নার কাছে মারাত্মক দূর্ভোগের সৃষ্টি হয়েছে।