এম মাঈন উদ্দিন, মিরসরাই (চট্টগ্রাম) : আনিকা জান্নাত দুই বছরের ফুটফুটে শিশু। এখনো ঠিকমতো বুলি ফোটেনি, মা-বাবা, দাদা-দাদির কোলে থেকে বড় হচ্ছে সে। বাবা বলে ডাকার আগেই এতিম হয়ে গেলো ছোট্ট এই শিশু। সে জানেনা তার বাবা বেঁচে নেই। জানারও কথা না কারণ এখনো তার ওই বয়স হয়নি।

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র প্রতিপক্ষের হাতে নির্মমভাবে খুন হয়েছেন যুবলীগ কর্মী শহিদুল ইসলাম আকাশ (২৮)। সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) রাত ৯টায় চমেকে কর্তৃব্যরত চিকিৎসক আকাশকে মৃত ঘোষণা করেন। এর আগে একই সন্ধ্যায় উপজেলার চিনকীরহাট বাজারে আকাশের নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান নাজমা টিম্বার এন্ড ফার্নিচার মার্ট নামে প্রতিষ্ঠানে তাকে হত্যার জন্য গলা কেটে ফেলে যায় সন্ত্রাসীরা।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে একই ইউনিয়নের পূর্ব হিঙ্গুলী এলাকার পিন্টু মিয়ার ছেলে হুমায়ুন কবির মামুনের সঙ্গে আকাশের দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। এর জের ধরে সোমবার সন্ধ্যায় মামুনের নেতৃত্বে ১০-১২ জনের একটি গ্রুপ অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে আকাশের প্রতিষ্ঠানে ডুকে তাকে উপর্যপুরি কুপিয়ে, গলা কেটে পালিয়ে যায়।

আশপাশের লোকজন তাকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়ে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এর আগে ২০১৮ সালেও আকাশকে কুপিয়েছিলো সন্ত্রাসীরা।

আকাশের বাবা নুরুল ইসলাম বলেন, ছেলের সাথে কথা বলে চিনকীরহাট বাজারে একটি চায়ের দোকানে দোকানে গিয়ে চা পান করতে বসেছি। সেই চা শেষ হওয়ার আগেই খবর পাই আমার ছেলের উপর হামলা হচ্ছে। এমন সময় দৌঁড়ে যান তিনি। গিয়ে দেখেন দুর্বৃত্তরা আকাশের গলায় চুরি চালিয়ে পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় আকাশ, মোতালেব সহ তিনজনের নাম উল্লেখ্য করে সরাসরি সম্প্রক্ততার কথা বলেন নিহতের বাবা নুর ইসলাম। তিনি বলেন, মামুন- মোতালেব সন্ত্রাসী। তাদের উপযুক্ত বিচার চাই।

হিঙ্গুলী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি কামরুল ইসলাম বলেন, আকাশ কোন পদ-পদবীতে না থাকলে সে ছাত্রলীগের রাজনীতিতে সাথে জড়িত ছিলো। এখন ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক পদ প্রত্যাশী ছিলো। রাজনীতিতে খুব সক্রিয় ছিল সে।

এ বিষয়ে জোরারগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নুর হোসেন মামুন জানান, আমরা ঘটনাস্থল পরিদশর্ন করেছি। ধারণা করছি পূর্ব শত্রুতার েেজরে এঘটনা ঘটেছে। লাশের ময়নাতদন্তের জন্য চমেকে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এখনো মামলা হয়নি। মামলা হলে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।