বাগমারা (রাজশাহী) প্রতিনিধি : জাল সনদে নিয়োগ ও একই সঙ্গে দুটি প্রতিষ্ঠানে চাকুরির অভিযোগ বাগমারার পীরগঞ্জ টেকনিক্যাল এন্ড বিজনেস ম্যানেজমেন্ট (বিএম) কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আব্দুল আজিজ, লাইব্রেরীয়ান সাইফুল ইসলাম ও বাংলা প্রভাষক আনিছুর রহমানের এমপিও বাতিল হয়েছে।

একই সঙ্গে অবৈধভাবে উত্তোলন করা অর্থ সরকারি কোষাগারে ফেরৎ দেওয়ার জন্য আদেশ দিয়ে সংশ্লিষ্ট শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

জানা গেছে, কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আব্দুল আজিজ ও লাইব্রেরীয়ান সাইফুল ইসলামের নিয়োগের সময় দাখিলকৃত সনদ জাল প্রমাণিত হওয়ায় বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জনবল কাঠামো ও নীতিমালা অনুযায়ী তাদের এমপি বাতিল করা হয়েছে।

কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তর যুগ্নসচিব ও ভোকেশনাল শাখার পরিচালক ড. মোহা: আব্দুস ছালামের স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত অফিস আদেশের একটি কপি সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন দপ্তরে পাঠানো হয়েছে।

এ ছাড়া কলেজের বাংলা বিষয়ের প্রভাষক আনিছুর রহমান প্রামানিক একই সঙ্গে দুটি প্রতিষ্ঠানে চাকুরি করার অভিযোগে তার এমপিও স্থগিতসহ উত্তোলন করা অতিরিক্ত অর্থ সরকারি কোষাগারে ফেরত দেওয়ার জন্য আদেশ দিয়ে কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মোহাম্মদ মিজানুর রহমান ভুইয়ার স্বাক্ষরিত একটি চিঠি সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন দপ্তরে পাঠানো হয়েছে।

এর আগে বিভিন্ন অমিয়ম ও দূর্নীতির অভিযোগে কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আব্দুল আজিজ, কলেজ পরিচালনা কমিটির সভাপতি অধ্যক্ষের বাবা কবির মাষ্টার ও তার আপন ভাই লাইব্রেরীয়ান সাইফুল ইসলামকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছিলো।

এদিকে জাল সনদ ও একই সঙ্গে দুটি প্রতিষ্ঠানে চাকুরির অভিযোগ তিনজন শিক্ষকের এমপি বাতিল হয়েছে বলে কলেজের বর্তমান ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আব্দুর রউফ মন্ডল স্বীকার করেছেন।