বন্যা তালুকদার, পাথরঘাটা (বরগুনা) প্রতিনিধি : বরগুনার পাথরঘাটায় সুখি ও লামিয়া নামের ষষ্ঠ শ্রেণির ২ স্কুলছাত্রী নিখোঁজের ঘটনা ঘটেছে।

নিখোঁজ ওই শিক্ষার্থী দুজনের পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছে বলে জানা গেছে।

নিখোজ ছাত্রীরা হল পাথরঘাটা পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মোশাররফ হোসেনের মেয়ে সুখি আক্তার (১৩) এবং একই এলাকার আজাদ খানের মেয়ে আয়শা আক্তার লামিয়া (১২)।

এ ঘটনায় সোমবার সন্ধ্যায় পাথরঘাটা থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন নিখোঁজ শিক্ষার্থীদের স্বজনেরা।

পাথরঘানা থানা সূত্রে জানা যায়, স্কুলছাত্রী সুখী ও লামিয়া পাথরঘাটা আদর্শ পাইলট বালিকা বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেনীর শিক্ষার্থী। তারা প্রতিদিনের মত সোমবার (২৫ অক্টোবর) সকাল সাতটায় ওই স্কুলে কোচিং এ যায়। কিন্তু সকাল ১০টা পেরিয়ে গেলেও তারা কেউ-ই বাসায় ফেরেনি। স্বজনরা বিভিন্ন স্থানে খোজাখুজি করে শিক্ষার্থীদের সন্ধান না পেয়ে পাথরঘটা থানায় দুটি আলাদা আলাদা সাধারণ ডায়েরি করেন।

নিখোঁজ সুখি আক্তারের মা নুর জাহান বেগম জানান, প্রতিদিনের মত কোচিংয়ে যায় সুখী। কিন্তু কোচিং ছুটির সময় পেরিয়ে গেলেও সুখী বাসায় ফেরেনি। পরে দুপুর পর্যন্ত অপেক্ষা করে আমি আত্মীয় স্বজনদের বাড়িতে খোঁজ নেই, কিন্তু সুখীকে পাওয়া যায়নি।

নিখোঁজ আয়শা আক্তার লামিয়ার দাদা সুলতান খান বলেন, আজ সকালে কোচিং এ যাওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয়। তবে দুপুর হওয়ার পরেও লামিয়া বাড়িতে না আসায় আমি ওর স্কুলে খোঁজ নিতে যাই।

স্কুলের শিক্ষররা জানায় লামিয়া কোচিংয়ে আসেনি। বিভিন্ন স্থানে খোঁজ নিয়ে না পেয়ে থানায় একটা জিডি করি। লামিয়া বেঁচে আছে নাকি মরে গেছে তা আল্লাহই ভালো জানে।

এ বিষয়ে পাথরঘটা থানায় ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল বাশার বলেন, দুই স্কুলছাত্রী নিখোঁজের ঘটনায় থানায় দুটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন নিখোঁজ শিক্ষার্থীদের স্বজনরা। জিডির পরিপ্রেক্ষিতে সকল ব্যবস্থা গ্রহন করেছে পুলিশ।