মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি : বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী বলেছেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বলিষ্ঠ নেতৃত্বের কারনেই বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে। এ দেশের সকল ধর্মের মানুষ র্দুগাপূজায় আনন্দ উপভোগ করেন যা সত্যেই একটি বিড়ল দৃষ্টান্ত। আমার বিশ্বাস দেবী দুর্গার, জ্ঞান আমাদের আলোর পথ দেখাবে।

বিক্রম দোরাইস্বামী আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে শহীদ দানবীর রণদা প্রসাদ সাহা প্রতিষ্ঠিত কুমুদিনী হাসপাতালের জন্য ভারত সরকারের উপহার একটি লাইফ সাপোর্ট এ্যাম্বুলেন্স,অত্যাবশ্যকীয় চিকিৎসা সামগ্রী- অক্সিজেন সিলিন্ডার, শ্বাস-প্রশ্বাস সহায়ক সরঞ্জাম হস্তান্তর এবং পূজা মন্ডপ পরিদর্শনে এসে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ সব কথা বলেন।

বিকেল সাড়ে চারটার সময় তিনি ও তার সহধর্মীনিসহ ভারতীয় হাইকমিশনের কর্মকর্তাগন কুমুদিনী কমপ্লেক্সে এসে পৌঁছালে কুমুদিনী পরিবারের সদস্যবৃন্দ এবং উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাগণ তাদের ফুলেল শুভেচ্ছা জানান।

লাইব্রেরী মিলনায়তনে চা-চক্রের পর তিনি কুমুদিনী কমপ্লেক্সের বিভিন্ন সেবাধর্মী ইউনিট এবং ভারতেশ্বরী হোমসের সবুজ চত্ত্বর পরিদর্শন করেন।

তিনি আরোও বলেন, ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় ভারত- বাংলাদেশ যে ভাবে কাঁদে কাঁদ মিলিয়ে কাজ করেছেন, বর্তমানেও দুই দেশের সরকার সম্পর্ক উন্নয়ন করে আরও উন্নয়নমূলক কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি বলেন. মুক্তিযুদ্ধের আদর্শে নির্ধারিত হয়েছে এবং যার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭১ সালে বাংলাদেশর জনগনের স্বাধীনতার সংগ্রামে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন।

কুমুদিনী হাসপাতাল, ভারতেশ্বরী হোমস, নার্সিং কলেজ, উইমেন্স মেডিকেল কলেজসহ সেবাধর্মী প্রতিষ্ঠানের জন্য ভারতের প্রধান মন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী কর্তৃক লাইফ সাপোর্ট এ্যাম্বলেন্স এবং চিকিৎসা সামগ্রী কুমুদিনী কল্যান ট্রাস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাজিব প্রসাদ সাহার ও কুমুদিনী হাসপাতালের পরিচালক ডা. প্রদীপ কুমার রায়ের কাছে হস্তান্তর করেন।

পরে তিনি মির্জাপুর গ্রামের সাহাপাড়া পূজা মন্ডপ পরিদর্শন করেন।

এ সময় তার স্ত্রী সঙ্গিতা দোরাইস্বামী, মির্জাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. হাফিজুর রহমান, মির্জাপুর থানা অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ রিজাউল হক, টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শরফুদ্দিন আহম্মদ, সহকারী পুলিশ সুপার (মির্জাপুর-নাগরপুর সার্কেল) এস এম আবু মুসা, টাঙ্গাইল ডিবি দক্ষিনের ওসি মো. দেলোয়ার হোসেন, কুমুদিনী কল্যাণ সংস্থার ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাজিব প্রসাদ সাহা, পরিচালক (শিক্ষা) মিস প্রতিভা মুৎসুদ্দি, পরিচালক শ্রীমতি সাহা, সম্পা সাহা, কুমুদিনী হাসপাতালের পরিচালক ডা. প্রদীপ কুমার রায় উপস্থিত ছিলেন।