বগুড়া অফিস : মারপিট ও হত্যা চেষ্টার ঘটনায় বগুড়া সদর থানায় দায়েরকৃত মামলায় আসন্ন বগুড়া জেলা পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী ও বগুড়া শহর আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগাঠনিক সম্পাদক আব্দুল মান্নান আকন্দকে জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

বুধবার সদর আমলী আদালতের অতিরিক্ত চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আহমেদ শাহরিয়ার তারিক এ আদেশ দেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কোর্ট ইন্সপেক্টর সুব্রত ব্যানার্জী।

এর আগে গত ১৪ সেপ্টেম্বর রেলওয়ের কর্মচারী কল্যাণ ট্রাস্টের মার্কেটের গাড়ি পার্কিংয়ের জায়গায় অবৈধভাবে নির্মিত শতাধিক দোকান উচ্ছেদ করার সময় রায়হান আলী নামে রেলওয়ের এক কর্মচারীকে মারধর করেন। এ ঘটনায় হত্যাচেষ্টা, চুরি ও মারপিটের অভিযোগে আহত রায়হানের বাবা হায়দার আলী সরকার ওই মার্কেট নির্মাণের ঠিকাদার আব্দুল মান্নান আকন্দকে প্রধান আসামী করে ৫১ জনের বিরুদ্ধে সদর থানায় মামলা দায়ের করেন।

সেই মামলায় প্রধান আসামি হিসেবে জামিন নিতে বুধবার সকালে সদর আমলী আদালতে হাজির হন আব্দুল মান্নান আকন্দ। আব্দুল মান্নান আকন্দের পক্ষের আইনজীবী রেজাউল করিম মন্টু বলেন, আদালতে জামিন আবেদন জানানো হয়েছিল। কিন্তু আদালত তা মঞ্জুর না করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন।

কোর্ট ইন্সপেক্টর সুব্রত ব্যানার্জী জানান, আদালতের আদেশ পাওয়ার পরেই আব্দুল মান্নান আকন্দকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে আব্দুল মানা œনের বিরুদ্ধে রেলওয়ে ক্যলাণ ট্রাষ্ট মার্কেটে দোকান বরাদ্দের নামে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। শত শত মানুষ দোকান বরাদ্দ নিতে তাকে কোটি কোটি টাকা দিয়েছেন। কিন্তু প্রতিশ্রæতি মোতাবেক কেউ দোকান পাননি। এতে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

এ ছাড়া শুকরা টিভি নামে অনলাইন টিভি চ্যানেলের ফেসবুক পেইজে টকশোর মাধ্যমে শহরের গন্যমান্য ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের নামে কুৎসা রটনা করার অভিযোগ রয়েছে। এতে বগুড়ার সুধি মহলে তার বিরুদ্ধে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। এ নিয়ে স্থানীয় সাংবাদিকদের কাছে একাধিক ব্যক্তি অভিযোগও করেছেন। উক্ত আব্দুল মান্নান আকন্দের বিরুদ্ধে তার ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান শুকরা এন্টারপ্রাইজের নেওয়া বগুড়া সদরের বড়িয়া দ্বিতীয় বাইপাস থেকে অদ্দিরগোলা বাজার পর্যন্ত সাড়ে ৩ কিলোমিটার রাস্তা কার্পেটিং কাজে অনিয়মের খবর বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশের পর বিক্ষোভ করেছে এলাকাবাসী।