বগুড়া অফিস : নওগাঁর তাঁত বস্ত্র ও ক্ষুদ্র কুটির শিল্প মেলার চার লটারি বিক্রেতাকে বগুড়ার আদমদীঘির সান্তাহারে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে জেল-জরিমানা করা হয়েছে।

বুধবার রাত ৮টায় উপজেলার সান্তাহার পৌর শহরের পূর্বাশা সিনেমা হলের সামনে লটারি বিক্রির সময় তাদের আটক করা হয়।

এরপর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার শ্রাবণী রায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে টিকিট বিক্রেতা নওগাঁর শোলগাছীর তসলিম উদ্দিনের ছেলে সিদ্দিক হোসেনকে (২৮) পাঁচ দিনের জেল, খলায়জরি এলাকার মৃত শাহিন হোসনের ছেলে শাহজাহান আলীকে (২৪) সাত দিনের জেল, জয়পুরহাটের ভাতছা গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলে সোহেল হোসেনকে (৩১) সাত দিনের জেল, আদমদীঘির দূর্গাপুর গ্রামের খোকনের ছেলে জাহিদুলকে (৩৩) দুই দিনের জেল এবং প্রত্যককে একশত টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে।

জানা যায়, গত ১৬ মে নওগাঁ পৌরসভার রজাকপুর এলাকায় বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল জলিল ট্রাক ও সিএনজি টার্মিনাল মাঠে তাঁত ও কুটিরশিল্প মেলায় লটারির আয়োজন করা হয়েছে। মেলায় প্রবেশমূল্য ২০ টাকা। প্রবেশের এই টিকিট একই সঙ্গে ব্যবহৃত হচ্ছে লটারির টিকিট হিসেবে। মেলার পণ্য বিক্রি যেমন তেমন হলেও লটারির টিকিট কেনার প্রতি মানুষের আগ্রহ বেশি।

মেলার প্রবেশমুখের পাশাপাশি মেলার ভেতরেও একাধিক জায়গায় বিক্রি করা হচ্ছে এসব লটারি। সেই লটারি বিক্রি করতে বুধবার সকাল থেকে সান্তাহার পূর্বাশা সিনেমা হলের সামনে একটি অটোরিকশা নিয়ে চার বিক্রেতা দাঁড়িয়ে থেকে লটারির টিকিট বিক্রি করছিল। রাত ৮টায় ভ্রাম্যমান আদালত অভিযান চালিয়ে তাদের জেল-জরিমানা করেন।

নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার শ্রাবণী রায় জানান, এরপরও যদি কেউ আদমদীঘি উপজেলায় এসব লটারির টিকিট বিক্রি করতে আসে তাহলে আরো কঠিন শাস্তি দেওয়া হবে।