বগুড়া অফিস : বগুড়ায় অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার সময় পল্লী বিদ্যুতের এক কর্মীকে পিটিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। শুক্রবার রাতে শিবগঞ্জ উপজেলার আটমূল ইউনিয়নের ভায়েরপুকুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত ওই ব্যক্তির নাম আব্দুল হান্নান (৩৩)।

তিনি বগুড়ার শাজাহানপুর উপজেলার খোট্টাপাড়া ইউনিয়নের জালশুকা গ্রামের মোজাম্মেল হকের ছেলে এবং পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির পীরব সাবজোনাল অফিসে অফিস সহকারী হিসেবে কর্মরত ছিলেন। এ সময় হামলায় ওই প্রতিষ্ঠানের সহকারি মহাব্যবস্থাপকসহ আরও ৫জন আহত হয়েছেন।

আহতরা হলেন- পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ওই একই কার্যালয়ের সহকারী মহাব্যবস্থাপক (এজিএম) রকিবুজ্জামান, চার লাইনম্যান যথাক্রমে পিন্টু প্রামাণিক, বিকাশচন্দ্র, ফারুক হোসাইন এবং আজিজুল হক। ওই ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পাঁচজনকে আটক করেছে পুলিশ।

আটককৃতরা হলেন- পরনন্দপুর এলাকার শাখাওয়াত হোসেনের ছেলে আবু সাইদ(৫০), সাইদের ছেলে সোহেল রানা(২৩), বড়বেলঘড়িয়া এলাকার ইমারউদ্দীনের ছেলে ইমরান কাজী(৩২), চন্দনপুর এলাকার জহুরুল ইসলামের ছেলে আতাউর (৩০) এবং একই এলাকার খাজা বাহাউদ্দিনের বাবর আলী(৩০)।

এ ঘটনায় শনিবার আহত এজিএম রকিবুজ্জামান ১৮ জনের নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাতনামা ৫০-৬০ জনের নামে শিবগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

বগুড়া পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর মহাব্যবস্থাপক (জিএম) মনিরুজ্জামান জানান, শিবগঞ্জ উপজেলার ভায়েরপুকুর এলাকার সাখাওয়াত হোসেনের দুই ছেলে আব্দুল হালিম ও আবু সাঈদের নামে নেওয়া আবাসিক সংযোগ থেকে অবৈধভাবে বাণিজ্যিক কাজে বিদ্যুৎ ব্যবহার করা হতো। বিষয়টি জানার পর অবৈধ ওই সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার জন্য তাদের পীরব সাব জোনাল অফিস থেকে ৭জনের একটি টিম শুক্রবার রাত ১১টার দিকে ঘটনাস্থলে যায়। তারা অবৈধ ওই সংযোগ কাটতে গেলে বিদ্যুৎ ব্যবহারকারী এবং তাদের সহযোগীরা আমাদের ৭ কর্মকর্তা-কর্মচারীকে মারপিট করে।

এ সময় আব্দুল হান্নান প্রাণভয়ে দৌড়ে চলে যায়। এরপর অবৈধ বিদ্যুৎ ব্যবহারকারীরা আমাদের অন্য ৬ কর্মকর্তা-কর্মচারীকে আটকে রাখে। বিষয়টি পরে শিবগঞ্জ থানায় জানানো হয়। এরপর পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আমাদের ৬ কর্মকর্তা-কর্মচারীকে উদ্ধার করলেও আব্দুল হান্নানের কোন খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। পরে রাত ২টার দিকে ঘটনাস্থল থেকে প্রায় ১ কিলোমিটার দূরে একটি জমিতে তার লাশ পাওয়া যায়। তিনি জানান, আহত অন্য ৬ কর্মকর্তা-কর্মচারী প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।

শিবগঞ্জ থানার এসআই লতিফুর রহমান জানান, পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উদ্ধার করে থানায় আনার পর গভীর রাতে আব্দুল হান্না নামে তাদের আরেক কর্মীর লাশ ধান খেতে পড়ে থাকার সংবাদ আসে। এরপর সেখানে গিয়ে লাশ উদ্ধার করা হয়। তিনি আরও জানান, ভোরে সুরতহাল করার সময় লাশের নাম ও মুখে রক্ত দেখা গেছে।

শিবগঞ্জ থানার ওসি দীপক কুমার দাস জানান, নিহত আব্দুল হান্নানের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের পক্ষ থেকে মামলা দায়ের এবং ৫জনকে আটক করা হয়েছে।