বগুড়া অফিস : নিম্নচাপের কারণে বগুড়ায় একটানা মুষলধারে বৃষ্টিতে মঙ্গলবার স্বাভাবিক জীবন যাত্রা স্থবির ছিল। সকাল ৬টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত জেলায় ১০৯ দশমিক ৬ মিলিমিটার বৃষ্টি রের্কড করা হয়েছে যা চলতি মৌসুমের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাতের রেকর্ড।

বৃষ্টির পানি দ্রুত নামতে না পারায় শহরের রাস্তাগুলো পানির নিচে তলিয়ে যায়। অনেক রাস্তায় এ কারণে ব্যাটারী চালিত রিকশা চলতে পারেনি। সকাল থেকে বৃষ্টির কারণে বহু ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান মার্কেট বন্ধ ছিল। তাই শহরে জনসমাগম অনেক কম ছিল।

এ ছাড়া জেলায় সারাদিনই থেমে থেমে বৃষ্টিপাত হয়েছে। এদিকে মুষলধারার বৃষ্টিতে শহরের অধিকাংশ সড়ক পানিতে ডুবে যাওয়ায় ভোগান্তিতে পড়েন পথচারী, ব্যবসায়ী ও বাসিন্দারা। বৃষ্টি কমলেও শহরবাসীকে জলাবদ্ধতায় অবর্ণনীয় দুর্ভোগ পোহাতে হয়।

ভুক্তভোগীরা জানান, ড্রেনেজ পাইপের মুখে ময়লা-আবর্জনা ও মাটি ও ইট সুরকি জমে থাকায় বৃষ্টির পানি দ্রুত সরতে না পারায় এ জলাবদ্ধতা তৈরি হয়েছে।

বগুড়া আবহাওয়া অফিসের ইনচার্জ আশেকুর রহমান জানান, সকাল ৬টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ছয় ঘণ্টায় জেলায় ১০৯ দশমিক ৬ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। নিম্নচাপের কারণে এই বৃষ্টিপাত ১৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত থাকতে পারে।

বগুড়া পৌরসভার মেয়র রেজাউল করিম বাদশা বলেছেন, পৌর এলাকার সকল ড্রেন নিয়মিত পরিস্কার করা হয় । সেই সাথে ড্রেনেজ ব্যবস্থা আরো উন্নত করতে উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, ২০২১ সালে দায়িত্ব গ্রহনের পর শহরের বড় বড় ড্রেন সহ সব ধরনের পরিস্কার করা করা হয়।