বগুড়া অফিস : বগুড়ায় জুয়ার আসরে ‘চাঁদাবাজির’ অভিযোগে পুলিশের এক এসআই সাময়িক বরখাস্ত ও তার সোর্সকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠিয়েছে সদর থানা পুলিশ।

এর আগে শুক্রবার সন্ধায় বগুড়া শহরের নাটাইপাড়ায়(নাপিতপাড়া) এ ঘটনা ঘটে। বরখাস্ত হওয়া পুলিশ কর্মকর্তা সদর থানার এস আই মাসুদ রানা এবং তার সোর্স ইকবাল হোসেন। রাতেই এ ঘটনায় মামলা দায়ের হয়েছে।

বগুড়া সদর থানার ওসি সেলিম রেজা বলেন, এ ঘটনায় রাতে মামলা দায়েরের পর সোর্স ইকবালকে গ্রেফতার দেখিয়ে শনিবার আদালতে পাঠানো হয় এবং এস আই মাসুদ রানাকে সাময়িক বরখস্ত করা হয়েছে। সেই সাথে বগুড়া সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সরাফত ইসলামকে প্রধান করে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

তদন্ত কমিটির প্রধান বগুড়া সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সরাফত ইসলাম বলেন, তদন্ত কমিটি দ্রুত প্রতিবেদন জমা দেবে। এরপর বরখাস্ত মাসুদ রানার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উল্লেখ্য, বগুড়া সদর থানার এসআই মাসুদ রানা তার সোর্স ইকবালকে সাথে নিয়ে শুক্রবার বিকেলে নাটাইপাড়ার নাপিতপাড়ায় জনৈক তরুন কুমার শীলের বাসায় যান। তারা পুলিশ পরিচয়ে বাসার ভিতরে প্রবেশ করে তরুন শীলের মোবাইল ফোন জব্দ করে। এসময় ওই বাসার ভিতর কয়েকজন যুবক মোবাইল ফোনে জুয়া খেলছিল।

এ সময় পুলিশের সোর্স ইকবাল তাদের কাছে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবী করে। এক পর্যায় বাড়ির লোকজন পুলিশের উপস্থিতি মোবাইল ফোনে ভিডিও ধারন শুরু করলে এসআই মাসুদ রানা তাদেরকে মারপিট শুরু করে।

তরুন শীল সাংবাদিকদের জানান, পুলিশ বাড়ির নারীদেরকেও মারপিট শুরু করলে প্রতিবেশীরা এসে পুলিশ ও তার সোর্সকে অবরুদ্ধ করে। খবর পেয়ে বগুড়া সদর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে স্থানীয় লোকজন বিক্ষুদ্ধ হয়ে পুলিশের বিরুদ্ধে বিভিন্ন শ্লোগান দেন। এসময় তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিয়ে অবরুদ্ধ অবস্থা থেকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন।