বগুড়া অফিস : আগামী ১লা ফেব্রুয়ারী অনুষ্ঠিতব্য জাতীয় সংসদের শূন্য আসন বগুড়া -৪ ও বগুড়া-৬ আসনের উপনির্বাচনে প্রতিদ্বন্দি ১৩জন প্রার্থীর মাঝে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। রিটার্নিং কর্মকর্তা ও বগুড়া জেলা প্রশাসক মোঃ সাইফুল ইসলাম সোমবার বেলা ১১টার দিকে তার কার্যালয়ে প্রার্থীদের হাতে বরাদ্দকৃত প্রতীক তুলে দেন।

বগুড়া-৬ (সদর ) আসনের নির্বাচনে মোট প্রার্থী ৮জন। এর মধ্যে দলীয় প্রার্থী ৬জন ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ২জন। প্রতিক প্রাপ্ত প্রার্থীরা হলেন, আওয়ামী লীগ মনোনীত জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক রাগেবুল আহসান রিপু (নৌকা) জাতীয় পার্টি মনোনীত জেলা কমিটির সাধারন সম্পাদক মোঃ নুরুল ইসলাম ওমর (লাঙ্গল), সাবেক তথ্য মন্ত্রী হাসানুল ইনুর নেতুত্বাধীন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) মনোনীত জাসদের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মোঃ ইমদাদুল হক ইমদাদ (মশাল) , মাছ প্রতীকে গণফ্রন্টের মোঃ আফজাল হোসেন, বটগাছ প্রতীকে বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের মো. নজরুল ইসলাম ও গোলাপ ফুল প্রতীকে জাকের পার্টির মোহাম্মদ ফয়সাল বিন শফিক। দুই জন স্বতন্ত্র প্রার্থীর মধ্যে আপেল প্রতীক পেয়েছেন মাছুদার রহমান হেলাল ও সাবেক আওয়ামীলীগ নেতা মোঃ আব্দুল মান্নান আকন্দ পেয়েছেন ট্রাক প্রতীক।

বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) আসনে মোট ৫ জন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর মাঝে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়। এর মধ্যে দলীয় প্রতীক মশাল পেয়েছেন সাবেক এমপি জাসদ (ইনু) মনোনীত এ কে এম রেজাউল করিম তানসেন, লাঙ্গল পেয়েছেন জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় সাংগাঠনিক সম্পাদক শাহীন মোস্তফা কামাল, ডাব প্রতীকে বাংলাদেশ কংগ্রেসের মোঃ তাজ উদ্দীন মন্ডল ও গোলাপ ফুল প্রতীকে জাকের পার্টির মো. আব্দুর রশিদ সরদার। এ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক বিএনপি নেতা মোঃ কামরুল হাসান সিদ্দিকী জুয়েল পেয়েছেন কুড়াল প্রতীক।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. মাহমুদ হাসান, সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শরাফত ইসলামসহ প্রমুখ।

ঘোষিত তফসীল অনুযায়ী শূন্য এ দুটি আসনে আগামী ১ ফেব্রয়ারী ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) সকাল সাড়ে ৮টা থেকে বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ করা হবে।

এদিকে এ দুই আসনে মনোনয়নপত্র দাখিলকারী স্বতন্ত্র প্রার্থী আলোচিত আশরাফুল হোসেন হিরো আলম এবং সদর আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী সরকার বাদল প্রার্থীতা ফিরে পেতে হাইকোর্টে আপিলের প্রস্তুতি নিয়েছেন বলে জানা গেছে।