বকশীগঞ্জ (জামালপুর) প্রতিনিধি : জামালপুরের বকশীগঞ্জে উজান নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে বন্যার সৃষ্টি হয়েছে। বন্যার পানি অব্যাহতভাবে বৃদ্ধির ফলে নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হচ্ছে। সেই সাথে দেখা দিয়েছে নদী ভাঙন। বন্যার পানি ফসলের ক্ষেতে প্রবেশ করায় সময়ের আগেই কেটে ফেলা হচ্ছে পাট ক্ষেত।

১৮ জুন শনিবার বন্যা কবলিত মেরুরচর ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকা সরেজমিনে পরিদর্শন করেছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মুন মুন জাহান লিজা, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) মো. মজনুর রহমান।

ব্রহ্মপত্র নদ, দশানী নদীর পানি বৃদ্ধির ফলে সাধুরপাড়া ,মেরুরচর ও বগারচর ইউনিয়নের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।

এদিকে অব্যাতভাবে পানি বৃদ্ধির কারণে সাধুরপাড়া ইউনিয়নের বাংগালপাড়া গ্রাম, আইরমারী খান পাড়া, মেরুরচর ইউনিয়নের কলকিহারা এলাকায় নদী ভাঙন দেখা দিয়েছে। ইতোমধ্যে নদী ভাঙনের কারণে প্রায় ১৫ টি পরিবার তাদের ভিটা মাটি হারিয়ে বাড়ি ঘর অন্যত্র সরিয়ে নিয়েছেন।

সাধুরপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মাহমুদুল আলম বাবু জানান, বন্যার পানি বাড়ার ফলে কুতুবের চর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যাওয়ার রাস্তাটি ভেঙে গিয়েছে। চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে রাস্তাটিতে। বিদ্যালয়টি হুমকির মুখে রয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুন মুন জাহান লিজা জানান, প্রতিদিনই উপজেলা প্রশাসনের পক্ষে বন্যা পরিস্থিতি দেখভাল করা হচ্ছে। এখন পর্যন্ত বন্যা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।