বকশীগঞ্জ (জামালপুর) প্রতিনিধি : জামালপুরের বকশীগঞ্জে এক কৃষক লীগ নেতার ধর্ষণের শিকার হওয়া এক তরুনী কন্যা সন্তান প্রসব করেছেন।

মঙ্গলবার বিকালে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের টয়লেট কক্ষে সন্তান প্রসব করেন ওই তরুনী (১৮)।

এ ঘটনায় বকশীগঞ্জ থানা পুলিশ সাড়ে রাত ১০ টার দিকে মেরুরচর এলাকা থেকে ধর্ষণের অভিযুক্ত দেলোয়ার হোসেন দুলু (৫০) কে আটক করেন থানা পুলিশ। দুলু সাধুরপাড়া ইউনিয়ন কৃষক লীগের সভাপতি ও আচ্চাকান্দি গ্রামের জহরুল হকের ছেলে।

জানা গেছে, সাধুরপাড়া ইউনিয়নের ডেরুরবিল গ্রামের বাসিন্দা এতিম ওই তরুনীর বাড়ি ও দুলুর বাড়ি পাশাপাশি এবং তারা নিকটআত্মীয় হওয়ায় দুুলু মাঝে মধ্যে ওই তরুনীর বাড়িতে যাতায়াত করতো। এই সুযোগে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ওই তরুনীকে ধর্ষণ করেন দুলু।

এক পর্যায়ে ওই তরুনী অন্তসত্ত্বা হয়ে পড়েন। বিষয়টি নিয়ে দুলু একাধিকবার হাসপাতালে নিয়ে গর্ভপাত করানোর কথা বললে লোকলজ্জার ভয়ে বাড়ি থেকে বের হননি ওই তরুনী।

মঙ্গলবার অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয় এবং সেখানেই কন্যা সন্তান প্রসব করে ধর্ষণের শিকার ওই তরুনী।

কন্যা সন্তান জন্ম দেওয়ার ঘটনা প্রকাশ হলে থানা পুলিশের দ্বারস্থ হন ভিকটিম পরিবার। এ ঘটনায় বকশীগঞ্জ থানায় ওই রাতেই ভিকটিমের মা বাদী হয়ে কৃষকলীগ নেতা দুলুকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ধর্ষণ মামলা দায়ের করলে থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে মেরুরচর এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করেন।
বকশীগঞ্জ থানার ওসি শফিকুল ইসলাম সম্রাট জানান, গ্রেপ্তারকৃত দেলোয়ার হোসেন দুলুকে বুধবার জামালপুর বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।