এবার একুশের বই মেলায় মাওলা ব্রাদার্স থেকে প্রকাশিত হয়েছে কবি লায়লা ফারজানার কাব্যগ্রন্থ ” ঝরা পাতার র‌্যাপসোডি”। আশি পৃষ্ঠার বইটির ঝকঝকে প্রচ্ছদ করেছেন ধ্রুব এষ। মোট ৫৭টি কবিতায় সন্নিবেশিত বইটি কবি লায়লা ফারজানা বাংলাদেশসহ পৃথিবীর নানা অঞ্চলের নানা বাস্তবতার চিত্র তার কবিতায় ফুটিয়ে তুলতে চেষ্টা করেছেন।

যারা বই প্রেমী, কবিতার কদর করেন,তারা লায়লা ফারজানার বইটি হাতে নিলেই বুঝতে পারবেন কতটা সাধনা করেছেন তিনি বইটি লিখতে। বিশ্বজনীনতা ও স্বাদেশীকতার নতুনতর মিশ্রণ এই বইটি।

লায়লা ফারজানা একজন আর্কিটেক্ট ইঞ্জিনিয়ার, কিন্তু শিল্প সংস্কৃতির প্রতি অনুরক্ততার কারনেই তার এই লেখালেখি।

”ঝরা পাতার র‌্যাপসোডি” তার এ যাবত লেখা কবিতার একটি সংকলন এবং প্রথম একক কাব্যগ্রন্থ। লায়লা ফারজানা প্রায় দুই দশক ধরে প্রবাস জীবন যাপন করছেন। প্রবাসে থাকাকালীন সেখানকার সংস্কৃতি আচার আচরণ , প্রকৃতি ও বৈশ্বয়িকতা সম্পর্কে সম্যক ধারনা পোষণ করেছেন। বিদেশের মাটিতে থেকেও তিনি বাংলা ভাষা ও সংস্কৃতিকে আকড়ে থেকে বাংলা কবিতার ঐতিহ্যকে যেমন লালন করেছেন, তেমনিভাবে বিশ্বজনীনতাকে আমলে নিয়ে তার কবিতায় প্রতিফলন ঘটিয়েছেন।

তার বইটির স্বকীয়তা ও সার্থকতা এখানেই -যেখানে তিনি বাংলা কবিতার গতানুগতিক ধারা থেকে বের হয়ে চিরকালীন বাংলা কবিতা ও সমকালীন মার্কিন কবিতার মূল প্রবণতার সম্মিলন গড়ে তুলেছেন এর নান্দনিকতা। প্রতিটি কবিতার প্রতিটি শব্দই যেন শক্ত গাঁথুনীতে ভরপুর। ”মারকিউরি জোন””ছায়াবিকৃতি””কুহক””রুপালী স্থাপত্য” কবিতায় বিশ্বজনীনতার ও আধুনিকতার ছোয়া লক্ষ্য করা যায়। বিশ্ব মহামারী করোনা ভাইরাস সারা পৃথিবীকে স্তব্ধ করে দিয়েছিল- মানুষ ছিল ঘরবন্দী, মৃত্যুর মিছিলে মানুষ দিকবিদিক ছিল, লকডাউন নামক শব্দটি যেন সবাইকে আতংকিত করে তুলেছিল। এর থেকে বের হয়ে আসার উদগ্র বাসনা লায়লা ফারজানা তার ”লকডাউন” কবিতায় সুন্দর ফুটিয়ে তুলেছেন।

”কথোপকথন””প্রতিজ্ঞা””প্রিয়মুখ””পালক””বালিয়াড়ি” কবিতার মাধ্যমে প্রেমের কবিতার এক ছান্দসিক রুপকল্প তৈরী করেছেন। আত্মার পরিশুদ্ধতার জন্য কবিতার বই এক অমূল্য সম্পদ। যারা ভাল বই প্রেমী -তারা লায়লা ফারজানার বইটি সংরক্ষণে রাখতে পারেন। বইটি উৎসর্গ করা হয়েছে হারিয়ে যাওয়া একটি মেয়েকে, যার নাম ছিল রিভোনা।

বইটির ভূমিকায় কবি নির্মলেন্দু গুণ চমৎকার বিশ্লেষণ করেছেন । প্রখ্যাত প্রাবন্ধিক ও বাগ্মী অধ্যাপক আব্দুল্লাহ আবু সায়ীদ তার মন্তব্যে লায়লা ফারজানার বইটির ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং লিখেছেন ”শব্দছন্দ বাক্যবন্ধ ছাপিয়ে কবিতার ভেতর একটা সম্পূর্ণতার দ্যোতনা ভাষাময় হয়েছে-পুরো কবিতা হয়েছে সজীব ও জীবনময়-একটা একক আবেগে জেগে উঠে কবিতা যেন কথা বলছে।”

মাওলা ব্রাদার্স থেকে প্রকাশিত সুন্দর মোড়কে বইটির মূল্য ধরা হয়েছে দুইশত পঞ্চাশ টাকা মাত্র। মেলায় মাওলা ব্রাদার্স এর ২৯ নং প্যাভিলিয়নে বইটি পাওয়া যাবে। এ ছাড়াও অনলাইনে অর্ডার করেও পাওয়া যাবে। ROKOMARI.COM