আব্দুল মজিদ মল্লিক, আত্রাই (নওগাঁ) প্রতিনিধি : নওগাঁর আত্রাইয়ে রাস্তা পাকা করণের পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে নিম্নমানের কাজের অভিযোগ প্রচারের প্রেক্ষিতে এলজিইডির যন্ত্র দ্বারা’তা আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে পরীক্ষা করা হয়েছে। রাস্তার শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত বিভিন্ন স্থানে পরীক্ষা করে কাজের গুণগতমান যথার্থ বলে প্রতিয়মান হয়েছে।

জানা যায়, আত্রাই উপজেলা সদরের সন্নিকটে সাহেবগঞ্জ সরদারপাড়া থেকে বিলগলিয়া পর্যন্ত রাস্তাটি জনগুরুত্বপূর্ণ রাস্তা। এলাকার কৃষকদের উৎপাদিত কৃষিপণ্য সহজেই বাজারজাত করে ন্যায্যমূল্য প্রাপ্তি নিশ্চিত করনের লক্ষ্যে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) পক্ষ থেকে।

সে অনুযায়ী ১ কোটি ১ লাখ ৫৮ হাজার ১২৮ টাকা চুক্তি মূল্য নির্ধারণ করে নওগাঁ সদরের মেসার্স দিদারুল ইসলাম এন্টারপ্রাইজ নামের ঠিকাদার নির্বাচন করে তাকে কার্যাদেশ প্রদান করা হয়। এদিকে ঠিকাদার সম্প্রতি এ রাস্তার কার্পেটিংয়ের কাজ সমাপ্ত করেন। রাস্তার কার্পেটিং সমাপ্ত হতে না হতেই সরদাপাড়া মসজিদ সংলগ্ন রাস্তার এক ধার থেকে কে বা কারা কার্পেটেং উঠিয়ে ফেলে। উঠে যাওয়া কার্পেটিংয়ের ছবি দিয়ে ফেইসবুকে দেয়া হয় “রাস্তার কাজ শেষ করে ২৪ ঘন্টা না হতেই রাস্তার বেহাল দশা”।

এমন প্রচারণা চোখে পড়তেই পুরো রাস্তা পর্যবেক্ষণ ও পরীক্ষা নিরীক্ষার ব্যবস্থা গ্রহন করেন উপজেলা প্রকৌশলী জোনায়েত আলম।

উপজেলার পারকাসুন্দা গ্রামের শরিফুল ইসলাম বলেন, ওই স্থান দেখে বুঝা যাচ্ছে শাবল বা কোন অস্ত্র দ্বারা সেখানকার কার্পেটিং উঠিয়ে ফেলানো হয়েছে। উপজেলা প্রকৌশলী জোনায়েত আলম বলেন, রাস্তাটির কাজের গুণগতমান ভাল হয়েছে। কথিত সাংবাদিক হিসেবে পরিচয় দানকারী এক ব্যক্তির আইডি থেকে এমন প্রচার করা হয়েছে। এ প্রচারণায় আমাদের ডিপার্টমেন্টের সুনাম ক্ষুন্ন হয়েছে। কোন অসৎ উদ্যেশ্যেই এমনটি করা হয়েছে বলে মনে হয়।