সাভার (ঢাকা) প্রতিনিধি : সাভারে হাত-পা বাঁধা ও গলায় গামছা পেঁচানো অবস্থায় উদ্ধার হওয়া অজ্ঞাত লাশের পরিচয় পেয়েছে পাওয়া গেছে। নিহতের নাম- সহিদ মিয়া (৪৫)। তিনি মানিকগঞ্জের বালির টেকের মরহুম খেপা মোল্লার ছেলে।

সহিদ মিয়ার স্ত্রী লাইলী বেগম শনিবার রাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছবি দেখে স্বামীর পরিচয় সনাক্ত করেন। ২ বছর যাবৎ সাভার পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ড রাজাসন মন্ডলপাড়া এলাকার আবুল হোসেনের গ্যারেজের অটোরিকশা চালাত বলে জানা যায়।

নিহতের স্ত্রী লাইলী বেগম জানান, গত শুক্রবার সন্ধ্যায় আমার স্বামী অটোরিকশা চালানোর জন্য বাসা থেকে বের হয়ে আর ফিরে আসেনি। বিভিন্ন জাগায় খোঁজ নিয়ে তার সন্ধ্যান পাওয়া যায় নি তার। পরে ফেসবুকে ছবি দেখে আমার স্বামীর পরিচয় সনাক্ত করি। আমার স্বামীকে হত্যার ঘটনায় সাভার থানায় আমি বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছি।

সাভার থানার (এসআই) সিকদার হারুন রশিদ জানান- প্রাথমিক ভাবে ধারনা করা হচ্ছে অটোরিকশা ছিনতাই করতেই সহিদ মিয়াকে হত্যা করা হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকে নিহতের লাশের ছবি দেখে নিহতের স্ত্রী তার স্বামীর লাশ সনাক্ত করেন।

উল্লেখ্য, গত শনিবার বেলা ১১ টার দিকে সাভার পৌরসভার আনন্দপুর সিটি লেনের বালুর মাঠ এলাকার একটি পরিত্যাক্ত বাউন্ডারির ভিতর জঙ্গল থেকে অজ্ঞত হিসাবে সহিদ মিয়ার লাশ উদ্ধার করে থানা পুলিশ। পরে সিঅইডি ও পিবিআই ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করে নিহতের পরিচয় সনাক্তের চেষ্টা করে। এর মধ্যে শনিবার সন্ধ্যায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছবি দেখে লাশটি পরিচয় সনাক্ত করেন তার স্ত্রী।