এম. মনিরুজ্জামান, রাজবাড়ী প্রতিনিধি : নদী পারের জন্য টানা চারদিন রাজবাড়ীর গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া ফেরি ঘাটের ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে অপেক্ষা করছে শতশত যানবাহন। ঢাকামুখী যানবাহনসহ অন্যান্য জেলা থেকেও আসা যানবাহনগুলোকে অপেক্ষায় থাকতে হচ্ছে।

ধারাবাহিকভাবে শুরু হওয়া এই যানবাহনের দীর্ঘ সারিতে ঘণ্টার পর ঘণ্টা আটকে থাকার জন্য বিপাকে পড়েছে সাধারণ যাত্রী ও ট্রাক চালকেরা।

এ ছাড়া মহাসড়কের গোয়ালন্দ উপজেলার সামনে ওয়েট স্কেলে পন্যবাহি ট্রাকের ওজন করার ঝামেলায় এ রাস্তায় সব সময়ই যানজট লেগেই থাকছে।

শুক্রবার (৮ অক্টোবর) সকাল থেকেই ঘাটে দেখা যায়, যাত্রীবাহী যানবাহন নদী পারাপারের জন্য অপেক্ষা করছে। পচনশীল পণ্যবাহী ট্রাক বাদে অন্যান্য পণ্যবাহী ট্রাকগুলোকে অপেক্ষা করতে হচ্ছে দিনের পর দিন। অনেক ট্রাক চালক আবার চারদিন আগে এসেও এখনো ফেরির দেখা পায়নি।

রাজবাড়ী পুলিশ প্রশাসন ঘাটে যানজট এড়াতে দৌলতদিয়া ঘাট থেকে ১২ কিলোমিটার দুরে গোয়ালন্দ মোড় কুস্টিয়া সড়কের একপাশ জুড়ে পন্যবাহি ট্রাকগুলো দাড় করায়ে রাখছে। ঘাটে ফেরি কম থাকায় ওই রাস্তার থোলা জায়গায় রাতে নিরাপত্তাহীনতায় ট্রাক চালকদের ২/৩ দিন করে অপেক্ষা করতে হচ্ছে। আর এ সমস্যা হচ্ছে দীঘদিন থেকে।

দুপুর ২টা পর্যন্ত সর্বশেষ ঢাকা-খুলানা মহাসড়কের বাংলাদেশ হ্যাচারি পর্যন্ত যানবাহনের দীর্ঘ সারি দেখা গেছে। এর মধ্যে যাত্রীবাহী বাসও রয়েছে। তবে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে যাত্রীবাহী বাস নদী পার করায় তেমন একটা অপেক্ষা করতে হচ্ছে না তাদের। ৪-৫ ঘণ্টা অপেক্ষার পরই দূরপাল্লার বাসগুলো নদী পার হচ্ছে।

এর আগে গত তিন দিন দৌলতদিয়া ঘাট এলাকার জিরো পয়েন্ট হতে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের প্রায় সাড়ে তিন কিলোমিটার এলাকায় যানবাহনের দীর্ঘ সারি ছিলো।

প্রতিদিনই বিকেলে চাপ কমে গেলেও সন্ধার পর সেই চাপ আরও বৃদ্ধি পায়।

বেনাপোল থেকে ছেড়ে আসা মেঘনা ঘাটগামী ট্রাকচালক ইসমত আলী বলেন, তিন দিন যাবৎ ঘাট পারাপারের জন্য অপেক্ষা করছি। গোয়ালন্দ মোড়ে ঘাটের সিরিয়ালের জন্য আটকে থাকার পর আজ সকাল ১১টায় এ পর্যন্ত এসেছি। ঘাট থেকেও আরও দেড় কিলোমিটার দূরে আছি। আর কতক্ষণ লাগবে কে জানে। আরও সমস্যা হচ্ছে আশে পাশে ভালো খাবারের হোটেল, বাথরুম নেই। এই জন্য আরও বেশি সমস্যা হচ্ছে।

খুলনা থেকে ছেড়ে আসা ট্রাকচালক সানি শেখ ক্ষোভের সাথেই বলেন, এই সব বলে আর কি হবে ঘাটের পরিস্থিতি কখনো ঠিক হবে না। গত তিনদিন থেকে ঘাট পারাপারের চেষ্টা করছি। আজ সকালে মোড় থেকে এখানে এসেছি (নুরু মন্ডলপাড়া)। কখন পার হব তার কোন ঠিক ঠিকানা নাই।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কার্যালয় (বিআইডাব্লিউটিসি) দৌলতদিয়া ঘাট ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) শিহাব উদ্দিন বলেন, আমাদের আজকে ফেরি চলাচল করছে ১৯টি। আর আমাদের ঘাট চালু আছে ৪টি। আমরা চেষ্টা করছি এই দীর্ঘ সারি ঘাট এলাকায় যেন না থাকে। তবে তিনি এই দীর্ঘ সারিকে স্বাভাবিক বলেই মনে করছেন।

তিনি বলেন, পচনশীল পণ্যবাহী ট্রাক ও যাত্রীবাহী বাসগুলোকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পারাপার করা হচ্ছে। সেক্ষেত্রে অন্যান্য পণ্যবাহী ট্রাকের সারি সৃষ্টি হচ্ছে যা স্বাভাবিক।