বিপুল মিয়া, ফুলবাড়ী ( কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি : কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে আন্তঃজেলা মোটরসাইকেল চোর চক্রের ২ কুখ্যাত চোর আটক করা হয়েছে। এ সময় ৩ টি ১৫০ সিসি বাজাজ পালসার, ১ টি ১২৫ সিসি বাজাজ ডিসকভার ও ১ টি ১০০ সিসি বাজাজ ডিসকাভারসহ মোট ৫ টি চোরাই মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়েছে।

পুলিশ বাদী হয়ে হয়ে দুই চোর চক্রের বিরুদ্ধে সোমবার সন্ধায় মামলা দায়ের করেন। আসামীকে মঙ্গলবার সকালে কুড়িগ্রাম জেল হাজতে প্রেরণ করা হবে।

জানা গেছে, কুড়িগ্রাম জেলা পুলিশের একটি বিশেষ টিম অভিযান চালিয়ে রবিবার (১৮সেপ্টেম্বর) গভীর রাতে ফুলবাড়ী উপজেলায় চোরাই মোটরসাইকেল ক্রয়-বিক্রয় হয় এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম এন্ড অপস) সুশান্ত চন্দ্র রায় ও সহকারী পুলিশ সুপার (নাগেশ্বরী সার্কেল) সুমন রেজার নেতৃত্বে ও কুড়িগ্রাম ডিবি পুলিশের সমন্বয়ে একটি দল উপজেলার সীমান্তঘেষা নাওডাঙ্গা ইউনিয়নের নাওডাঙ্গা ও কিশামত শিমুলবাড়ী এলাকায় অভিযান চালায়।

এ সময় আন্ত ঃজেলা চোরাই মোটরসাইকেলের ইঞ্জিন নম্বর ও চেসিস নম্বর পরিবর্তন করে পেশাদার ভাবে ক্রয় বিক্রয়ের সাথে জড়িত কুখ্যাত চোর নাওডাঙ্গা গ্রামের আইজুদ্দিনের ছেলে জাহাঙ্গীর আলম (২৬) ও কিশামত শিমুলবাড়ী গ্রামের পল্লী চিকিৎসক জাহাঙ্গীর হোসেনের ছেলে মিজানুর রহমান (২৩)কে হাতেনাতে গ্রেফতার করা হয়।

কুড়িগ্রাম পুলিশ সুপার আল আসাদ মোঃ মাহফুজুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান,ফুলবাড়ী থানা এলাকার নাওডাঙ্গা ও কিশামত শিমুলবাড়ী গ্রামের বিভিন্ন স্থানে রাতভর তল্লাশি চালিয়ে জেলা গোয়েন্দা শাখার একটি চৌকস আভিদানিক দল ৫টি মোটরসাইকেল উদ্ধারসহ কুখ্যাত চোর চক্রের ২ সদস্যকে আটক করে। বিআরটিএ হতে তথ্য সংগ্রহ করে মোটরসাইকেল মালিকদের নাম ঠিকানা সংগ্রহ করা হয়েছে।

ইতোমধ্যে দুইজন মালিক সনাক্ত করা গেছে। একজনের মোটরসাইকেল তিন মাস পুর্বে রংপুর জেলার গংগাচড়া উপজেলা হতে চুরি হয়েছে এবং অন্য জনের দিনাজপুরের বিরগঞ্জ হতে চুরি হয়েছে। বাকীদের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা চলছে। যথাযথ আইনি প্রক্রিয়ায় দেশের বিভিন্ন জেলা হতে চোরাইকৃত এসব মোটর সাইকেল প্রকৃত মালিকের কাছে ফিরিয়ে দেয়ার জন্য কুড়িগ্রাম জেলা পুলিশ প্রানান্তকর প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে।