নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি : বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার বড়পুকুরিয়া গ্রামের ৩টি পরিবারকে বেড়া দিয়ে ১০ দিন যাবত গৃহবন্দী করে রাখা হয়েছে। ভুক্তভোগীরা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

প্রাপ্ত তথ্য জানা গেছে, উপজেলার বুড়ইল উইনিয়নের বড়পুকুরিয়া গ্রামের মৃত মকছেদ আলীর পুত্র মোঃ আব্দুস সামাদ, ও আকবর আলী, এবং মৃত আব্দুর রশিদ এর স্ত্রী সাজেদা বিবি, তাদের ক্রয়কৃত সম্পত্তির উপর ঘর-বাড়ি করে দীর্ঘ ৫৬ বছর যাবৎ বসবাস করে আসছে।

হঠাৎ করে গত ৩০ সেপ্টেম্বর একই গ্রামের ছলেমানের ছেলে সাইফুল ইসলাম, আব্দুল জব্বারের পুত্র রফিকুল ইসলাম ও মৃত মকছেদ আলীর পুত্র আ: বারিক জোর করে তাদের দরজার সামনে দিয়ে বেড়া দিয়ে আটকে দেয়।

ফলে সামাদ, আকবর, ও সাজেদাদের ৩টি পরিবার বাড়ির ভিতরে আটকে পড়ে আছে। তারা কোন মতে বাড়িতে যাতায়াত করতে পারছে না। ভ্যান, গরু সহ সকল জিনিসপত্র এমনকি তারা নিজেরাও বাড়িতে যাতায়াত করতে পারছেন না। এখন গৃহ বন্দি হয়ে পড়েছে এই ৩টি পরিবার।

সাইফুল গং-রা নানা ধরনের হুমকি-ধামকি দিয়ে এমনকি তাদেরকে মারপিট করে বাড়ি থেকে বের করে দিবে বলে জানা গেছে। বর্তমানে ৩টি পরিবার অত্যান্ত নিরাপত্তাহীনতায় ভূকছে। তারা প্রভাবশালী হওয়ার কারণে যে কোন সময় প্রাণনাশ ঘটাতে পারে।

সরেজমিনে গিয়ে স্থানীয় লোকজনের সাথে কথা বললে তারা জানান, দির্ঘদিন হলে সামাদ, আকবর ও সাজেদার বসবাস করে আসছে। তাদের চলাচলের রাস্তা বেড়া দিয়ে আটকে দিয়ে একেবারে অন্যায় করেছে।

এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য আব্দুর রাজ্জাকের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, বেড়া দেওয়ার কথা আমি শুনেছি তবে তা সম্পূর্ণ অন্যায়। এ ব্যাপারে নন্দীগ্রাম থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।