সরাইল (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি : জাতীয় প্রতিবন্ধী দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের আলোচনা সভা, মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও বিশেষজ্ঞ ডাক্তারদের পরামর্শ প্রদান এবং শিক্ষা উপকরণ বিতরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রোববার ৫ ডিসেম্বর ২০২১ইং সকাল ১০টায় ৪/এ, ইস্কাটন গার্ডেন, সুইড কনভেনশন সেন্টার, সুইড ভবন, ঢাকায় আলোচনা সভা, মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, বিশেষজ্ঞ ডাক্তারদের সাথে অভিভাবকদের পরামর্শ, ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ-এর সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন। তিনি বলেন, ১৯৭৪ সালে বঙ্গবন্ধু সমাজকল্যাণ অধিদপ্তরের মাধ্যমে প্রতিবন্ধী শিশুদের জন্য শিক্ষার ব্যবস্থা করেন। জননেত্রী শেখ হাসিনা প্রতিবন্ধীদের জন্য ভাতা সহ বিভিন্ন সুযোগ সুবিধার ব্যবস্থা করেছেন।

তিনি বলেন, ১৯৭২ থেকে ১৯৭৪ সাল পর্যন্ত অতি ডান অতি বাম-রা ডাকাতি শুরু করেছিল। জননেত্রী শেখ হাসিনা আজ যখন বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশকে একটি উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠা করেছেন আজকেও সেই ডান এবং বামে-রা ষড়যন্ত্র করছে। এ সকল বিষয়ে আমাদের সজাগ থাকতে হবে।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সুইড বাংলাদেশের মহাসচিব মাহবুবুল মুনির, তিনি বলেন, আমাদের এই বিশেষ সন্তানেরা কোন অপরাধ করেনা, তাদের মধ্যে কোন হিংসা বিদ্বেষ কিচ্ছু নেই। তাদের মন সম্পূর্ণ পবিত্র। তারা শুধুমাত্র ভালবাসা চায়।

অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে নির্মল রঞ্জন গুহ বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা আমাদের শিখিয়েছেন কিভাবে দুর্যোগ, দুর্বিপাকে মানুষের পাশে থাকতে হয়। জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে স্বেচ্ছাসেবক লীগের পথ চলা। প্রতিবন্ধীরা মানুষের বোঝা নয়, প্রতিবন্ধীরা দেশের সম্পদ, জননেত্রী শেখ হাসিনার সুযোগ্য কন্যা সায়মা ওয়াজেদ পুতুল প্রতিবন্ধীদের জন্য যে সমবেদনা, কর্তব্য- নিষ্ঠা দেখিয়েছেন এটা আমাদের জন্য গর্বের বিষয়।

সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আফজালুর রহমান বাবু বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার সুযোগ্য কন্যা সায়মা ওয়াজেদ পুতুল অটিজম নিয়ে কাজ করেন, প্রতিবন্ধী শিশুদের জন্য তিনি তাঁর মাতা জননেত্রী শেখ হাসিনাকে উদ্বুদ্ধ করেছেন বলেই সরকার প্রতিবন্ধীদের অধিকার সমুন্নত রাখতে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। তিনি বলেন, সকল নাগরিক আইনের দৃষ্টিতে সমান, সমান আশ্রয় লাভের অধিকারী। সকল ধর্ম বর্ণ জাতি গোষ্ঠী নির্বিশেষে রাষ্ট্র কোন বৈষম্য প্রদর্শন করবে না। প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা অপ্রতিবন্ধীদের ন্যায় সমান অধিকার ভোগ করবে। এটাই একজন নাগরিকের মৌলিক অধিকার। জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার সকল ক্ষেত্রে মানুষের মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করছেন।

অনুষ্ঠানে আরোও বক্তব্য রাখেন সহ-সভাপতি নির্মল চ্যাটার্জী, কাজী শহিদুল্লাহ লিটন, সালেহ মোহাম্মদ টুটুল, প্রতিবন্ধী উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক আনোয়ার পারভেজ টিংকু, তিনি বলেন মানুষের সেবাই ধর্ম, মানব কল্যাণে কাজ করা ইবাদত, এতে পূণ্য বাড়ে পাপ মোচন হয়। প্রতিবন্ধীরা অসহায়, দুস্থ মহান আল্লাহ তাদের নেয়ামত হিসাবে পাঠিয়েছেন। আমরা যেন তাদের সাথে ভালো আচরণ করি। আরও বক্তব্য রাখেন উপ-প্রতিবন্ধী উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক ডাঃ উম্মে সালমা মুনমুন।

আরও উপস্থিত ছিলেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এ কে এম আজিম, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল সায়েম, আরিফুর রহমান টিটু, প্রচার সম্পাদক, রফিকুল ইসলাম বিটু, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক আহাম্মদ উল্লাহ জুয়েল, ডিজিটাল আর্কাইভ ও পাঠাগার বিষয়ক সম্পাদক এম এ হান্নান, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক মোস্তফা কামাল খান মনি, উপ-প্রচার সম্পাদক মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান বিপ্লব, উপ-দপ্তর সম্পাদক অ্যাড. মোঃ মনির হোসেন, সদস্য, ডাঃ রাজীব কুমার সাহাসহ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ, প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী ও অভিভাবকবৃন্দ।