গত ১১ আগস্ট, ২০২২ ইং তারিখ অনলাইন নিউজ পোর্টাল খোলাবার্তা২৪ ডটকম এ “পাথরঘাটায় আরডিএফের বিরুদ্ধে সাত মাসের বেতন ভাতা আত্মসাতের অভিযোগ” শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির উপ-পরিচালক ও মানব সম্পদ উন্নয়ন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান মোঃ ইসতিয়াক আজাদ।

প্রতিবাদপত্রে তিনি বলেন, উল্লেখিত প্রকল্পে নিয়োগপ্রাপ্ত পাথরঘাটা উপজেলার আওতাধীন শিক্ষকদের বেতন-ভাতাদি, শিখন কেন্দ্রের ভাড়া ও শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তির টাকা প্রদান না করে আত্মসাৎ করেছে মর্মে সংবাদ প্রকাশ করা হয়। যা সম্পূর্ণভাবে মিথ্যা ও বানোয়াট। উক্ত মিথ্যা সংবাদ প্রকাশের কারণে রিসোর্স ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন (আরডিএফ) এর সুনাম ও ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হচ্ছে। উক্ত সংবাদের প্রেক্ষিতে রিসোর্স ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন (আরডিএফ) তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

প্রতিবাদপত্রে বলা হয়- রিসোর্স ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন (আরডিএফ) একটি জাতীয় প্রতিষ্ঠান। দীর্ঘদিন ধরে সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন কার্যক্রম ও দাতা সংস্থার সাথে সুনামের সাথে পরিচালনা করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোর তত্বাবধানে এবং আরডিএফ সংস্থা কর্তৃক বাস্তবায়িত ঝরে পড়া শিশুদের শিক্ষার বিকল্প সুযোগ সৃষ্টির নিমিত্তে “আউট অব স্কুল চিল্ড্রেন শিক্ষা কর্মসূচির” কার্যক্রম বরগুনা জেলার আওতাধীন ৪টি উপজেলায় (বরগুনা সদর, পাথরঘাটা, তালতলী, আমতলী) প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব তহবিল থেকে পরিচালনা করছে।

প্রতিবাদপত্রে আরো বলা হয়- প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় কর্তৃক শিখন কেন্দ্রগুলোতে শিক্ষকদের বেতন-ভাতাদি, স্কুল ঘর ভাড়া, শিক্ষার্থীদের ইউনিফর্ম সহ শিক্ষা উপকরণ এখনও পর্যন্ত মন্ত্রণালয় কর্তৃক ছাড় করা হয় নাই এবং যা আমাদের বরগুনা জেলার মাননীয় জেলা প্রশাসক মহোদয়ের Validation এর নিমিত্তে তার দপ্তরেই প্রক্রিয়াধীন। সংস্থার ভাবমূর্তি ও সুনাম রক্ষার্থে শিক্ষকদের বেতন-ভাতাদি ও স্কুলঘর ভাড়া ব্যতীত অন্যান্য খরচ সংস্থার নিজস্ব তহবিল থেকে পরিচালনা করে আসছে।

উল্লেখ্য যে, শিক্ষকদের বেতন-ভাতাদি ও স্কুলঘর ভাড়া প্রাথমিক ও গণ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ধীন উপানুষ্ঠানিক ব্যুরো কর্তৃক অর্থ ছাড় না পাওয়ায় উক্ত বেতন-ভাতাদি ও স্কুলঘর ভাড়া প্রদান করা হয় নাই।

প্রতিবেদকের বক্তব্য : সরেজমিনে তথ্য সংগ্রহ করতে গেলে শিক্ষকদের বেতন না পাওয়ার ঘটনার সত্যতা পাওয়া যায় এবং নিয়োগকৃত শিক্ষকগণ তাদের অভিযোগ জানান। পরে সংস্থাটির স্থানীয় কর্তৃপক্ষের কাছে গেলে তারাও শিক্ষকদের বেতন না পাওয়ার স্বীকার করেন এবং এই প্রতিবেদককে ম্যানেজ করার চেস্টা করেন সংবাদ প্রকাশ না করার জন্য। যার প্রমাণ প্রতিবেদকের কাছে আছে।

আউট অব স্কুল চিলড্রেন শিক্ষা কর্মসূচির পাথরঘাটার ব্যবস্থাপক জহিরুল ইসলাম মিঠু বেতন না পাওয়ার সত্যতা স্বীকার করে জানান, অতিশীঘ্রই শিক্ষকদের বেতন-ভাতা দিয়ে দেয়া হবে।

এ ছাড়াও বিষয়টি নিয়ে পাথরঘাটা উপজেলা চেয়ারম্যান মোস্তফা গোলাম কবিরের কাছেও ভুক্তভোগীরা অভিযোগ দিয়েছেন। তিনিও কর্তৃপক্ষকে পাওনা মিটিয়ে দিতে বলেন।