নিজস্ব প্রতিনিধি : প্রেস ইনস্টিটিউট বাংলাদেশের (পিআইবি) আয়োজনে ঢাকা সাব-এডিটরস কাউন্সিলের সদস্যদের জন্য দুই দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ শেষ হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বিকালে পিআইবির সেমিনার কক্ষে অনুষ্ঠিত প্রশিক্ষণের সমাপনী অনুষ্ঠানে সভাপ্রধান হিসেবে প্রশিক্ষণপ্রাপ্তদের মধ্যে সনদ বিতরণ করেন পিআইবি মহাপরিচালক জাফর ওয়াজেদ। সমাপনী অনুষ্ঠানে ফ্যাক্টচেক ও সাংবাদিকতার নৈতিকতা নিয়ে আলোচনা করেন তিনি।

পিআইবি মহাপরিচালক বলেন, এখন মিথ্যাচার অনেক বেশি হচ্ছে। ফেসবুকের স্ট্যাটাস দিয়ে অনেক দৈনিক পত্রিকা প্রতিবেদন করছে। এজন্য ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের প্রয়োজনীয়তা ছিল।

তিনি বলেন, অনলাইন গণমাধ্যমগুলোতে অল্প সময়ের মধ্যে সংবাদ প্রচার হয়। এখানে ভুল তথ্য পরিবেশন হলে সহজে জনগণ বিভ্রান্ত হয়। সেদিকে কর্তৃপক্ষের সতর্ক হতে হবে।

জাফর ওয়াজেদ বলেন, তথ্য অধিকার আইনের মাধ্যমে অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার সুযোগ থাকলেও সাংবাদিকরা এ আইনের মাধ্যমে তথ্য চেয়ে কম আবেদন করেন।

কর্মশালাতে প্রশিক্ষকরা ফ্যাক্টচেক বিষয়ক ধারণা, ফ্যাক্টচেকিং টুলস, ভুয়া তথ্য যাচাই, সামাজিক মাধ্যমে ভুয়া সংবাদ ছড়ানোর প্রবণতা ও ঝুঁকি, ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন লেখার কৌশল, ভুয়া ছবি ও ভিডিও চিত্রের ফ্যাক্টচেক করার পদ্ধতি, ফ্যাক্টচেকিং সাইট পর্যবেক্ষণ এবং সত্যতা যাচাই সম্পর্কে অংশগ্রহণকারীদের প্রশিক্ষণ দেন।

প্রশিক্ষণ কর্মশালায় ঢাকা সাব-এডিটরস কাউন্সিলের ৩৫ জন সদস্য অংশগ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানে ঢাকা সাব-এডিটরস কাউন্সিলের সভাপতি মামুন ফরাজী ও সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসান হৃদয় উপস্থিত ছিলেন। প্রশিক্ষণ সমন্বয় করেন পিআইবির সহকারী প্রশিক্ষক নাসিমূল আহসান।

এ ছাড়া জামালপুর জেলার বকশীগঞ্জ ও দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার সাংবাদিকদের জন্য পিআইবির সেমিনার কক্ষে (বুধবার ও বৃহস্পতিবার) দুই দিনব্যাপী অপর একটি বুনিয়াদি আবাসিক প্রশিক্ষণ সম্পন্ন হয়েছে। সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রশিক্ষার্থীদের মধ্যে সনদ বিতরণ করেন পিআইবির মহাপরিচালক জাফর ওয়াজেদ।

এই কর্মশালায় দুই উপজেলার ৩০ জন সাংবাদিক অংশগ্রহণ করেন। প্রশিক্ষণ সমন্বয় করেন পিআইবির প্রশিক্ষক পারভীন সুলতানা রাব্বী।