বন্যা তালুকদার, পাথরঘাটা (বরগুনা) প্রতিনিধি : বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলার সদর ইউনিয়নের ৬১ নং রুহিতা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সরকারের দেয়া পাঠ্যবই কেজি দরে বিক্রি করে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে প্রধান শিক্ষক গোলাম ছরোয়ারের বিরুদ্ধে। এ সময় তিনি ৮ হাজার ৫শ টাকার বই বিক্রি করেন। তবে বিষয়টি তিনি অস্বীকার করেছেন। কিভাবে বই বিক্রি হয়েছে তা তিনি জানেন না বলে জানান।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে লুৎফুর রহমান নামের এক ভ্যানচালকের কাছে ৩৮৭ কেজি বই ২২ টাকা কেজি দরে বিক্রি করেন ৬১ নং সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গোলাম ছরোয়ার। ভ্যানে করে ওই বইগুলো নিয়ে যাওয়ায় সময় চালককে আটক করেন স্থানীয়রা। পরে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা টিএম শাহ আলম ঘটনাস্থলে আসলে বইসহ ভ্যান চালককে তার হাতে তুলে দেন তারা।

বই ক্রেতা ভ্যানচালক লুৎফুর রহমান প্রধান শিক্ষকের কাছ থেকে বইগুলো ক্রয় করার কথা স্বীকার করে জানান, প্রধান শিক্ষকের কাছ থেকেই বইগুলো ক্রয় করেছি। বই নিয়ে যাওয়ার সময় যেন কেউ দেখে না সেই বিষয়ে সতর্ক থাকতে বলেছিলেন তিনি।

ওই বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আসাদুজ্জামান জানান, প্রধান শিক্ষক বইগুলো বিক্রি করেছেন, আপনারা তার সাথে কথা বলেন। একটি বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক সব পারেন, তার কথা ছাড়া কিছুই হয় না।

ম্যানেজিং কমিটির সদস্যরাও সভাপতি মনির হোসেন ও প্রধান শিক্ষক গোলাম ছরোয়ারের দোষ দেন। তারাই এ রকম অনিয়ম করেন বলে জানালেও সভাপতি মনির হোসেনের কাছে জানতে চাইলে তিনি কিছুই জানেন না বলে জানান।

এ ঘটনায় পাথরঘাটা উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা টিএম শাহ আলম বলেন, যে সকল বই জব্দ করা হয়েছে সেগুলো পুরোনো বই। পুরোনো হলেও সরকারের দেয়া বই বিক্রির নিয়ম নেই। সেগুলো তিনি বিক্রি করতে পারেন না। বিক্রি করা বইগুলো চলতি বছরের নয়, ২০১৯, ২০২০ ও ২০২১ সালের। এগুলো উপজেলা অফিসে জমা দিতে হয়। সবকিছু একটা নিয়মের মধ্যে করা হয়। তিনি সেই নিয়ম না মেনেই বই বিক্রি করেছেন।