বন্যা তালুকদার, পাথরঘাটা (বরগুনা) প্রতিনিধি : বরগুনার পাথরঘাটায় জেসমিন সুলতানা (২৮) নামে এক গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করেছ পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর) দিনগত রাত ২টা ২০মিনিটে পাথরঘাটা পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের বসত ঘরের বিছানা থেকে উদ্ধার করা হয় ওই গৃহবধূর লাশ।

জেসমিন সুলতানা ওই ওয়ার্ডের সুলতানা খানের মেয়ে। স্বামী আবুল বাশার খানের (৩২) বরগুনার গর্জনবুনিয়া এলাকায়।

জেসমিন সুলতানার মা রেনু বেগম এবং প্রতিবেশীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে , বিয়ের পর থেকেই মেয়েকে নির্যাতন করতো স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির লোকজন। অত্যাচার থেকে মুক্তি পেতে বাবার জমিতে ঘর তুলে স্বামীকে নিয়ে বসবাস করে আসছিলেন নিহত জেসমি।

জানা গেছে, রাত আড়াইটার দিকে জেসমিনের স্বামী আবুল বাশার মোবাইলে শ্যালক রফিকুলকে তার বোন গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করার খবর জানায়।

ওই শ্যালক তাৎক্ষণিক বোনের বাড়িতে এসে বোন জেসমিন সুলতানার মরদেহ বিছানায় দেখতে পায় বলে জানায়।

এ ঘটনার পর থেকে বাশার ও তার ভগ্নিপতি মোস্তফা আত্মগোপনে চলে যায় বলে রিপোর্ট তৈরি পর্যন্ত জানা গেছে। পরিবারের ধারণা, আবুল বাশার নিজেই তার স্ত্রীকে শ্বাস রোধ করে হত্যা করে পালিয়েছে। খবরটি এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে প্রচুর লোকজন জেসমিনের বাড়িতে ভিড় জমায়।

পাথরঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল বাশার জানান, মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।