খোলাবার্তা২৪ ডেস্ক : বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, জ্বালানি তেলের দাম যা বাড়ানো হয়েছে, তাতে কেজিতে চালের দাম বড় জোর ৫০ পয়সা বাড়তে পারে। কিন্তু ৪ টাকা পর্যন্ত বাড়ানো হচ্ছে। এর কোন যুক্তি থাকতে পারে না।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘তেলের দাম যে পরিমাণ বাড়ানো হয়েছে, এক শ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ী পণ্যের দাম সেই তুলনায় অনেক বেশি নেওয়ার সুযোগ নিচ্ছেন।’

বুধবার সচিবালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে টিসিবি’র ফ্যামিলি কার্ডের মাধ্যমে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য বিক্রির বিষয়ে টিআইবি প্রকাশিত রিপোর্টের বিষয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ সব কথা বলেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, জ্বালানি তেলের দাম যা বাড়ানো হয়েছে, তাতে কেজিতে চালের দাম বড় জোর ৫০ পয়সা বাড়তে পারে। কিন্তু ৪ টাকা পর্যন্ত বাড়ানো হচ্ছে। এর কোন যুক্তি থাকতে পারে না। তার মানে কেউ কেউ অতি মুনাফার সুযোগটা নিচ্ছে। আবার কেউ কেউ পণ্য পরিবহন খরচ বাড়ানোরও সুযোগ নিচ্ছে। তবে এসব অসাধু ব্যবসায়ীদের প্রতি নজর রাখা হচ্ছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

টিপু মুনশি বলেন, নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যমূল্যের কারণে মানুষ কষ্টে আছে সেটা আমরা স্বীকার করি। এ জন্য পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। এর ইতিবাচক প্রভাবও দেখা যাচ্ছে। আগামী দু’এক মাসের মধ্যে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে আসবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

১ কোটি ফ্যামিলি কার্ডের মাধ্যমে টিসিবি’র নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য বিক্রির ক্ষেত্রে অনিয়ম হয়নি দাবি করে তিনি বলেন, কার্ড বিতরণে অনিয়ম হয়েছে বলে টিআইবি যে রিপোর্ট প্রকাশ করেছে- সেটি যথাযথ তথ্যের ভিত্তিতে করা হয়নি।

তিনি জানান, ১ কোটি ডিজিটাল ফ্যামিলি কার্ডের প্রায় ৯৫ শতাংশই ইতোমধ্যে সুবিধাভোগিরা পেয়ে গেছেন। বাকী ৫ শতাংশ দ্রুত বিতরণ শেষ হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।