শরীয়তপুর প্রতিনিধি : নড়িয়ার রাজনগরে দানেস সরদার (৩৮) নামে এক ব্যবাসায়ী যুবককে প্রতিপক্ষের লোকজ কুপিয়ে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল সোমবার রাতে শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার ঠাকুর কান্দি গ্রামের লোকমান আকনের বাড়ি সংলগ্ন রাস্তায় এই ঘটনা ঘটে। নিহত দানেশ সরদার একই এলাকার সোনামিয়া সরদারের ছেলে।

নিহতের চাচা রফিক বেপারী ও নড়িয়া থানা সূত্রে জানা গেছে, নড়িয়া উপজেলার রাজনগর ইউনিয়নের ঠাকুর কান্দি গ্রামের সোনামিয়া সরদারের ছেলে নিহত দানেশ সরদার দীর্ঘদিন প্রবাসে ছিলেন। প্রায় তিন বছর ধরে দেশে ফিরে ঢাকার সাভারে ব্যবসা করেন। গত ৮/৯ দিন পুর্বে তিনি নিজ বাড়ি আসেন। স্থানীয় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দানেস সরদার গংদের সাথে একই গ্রামের জয়নাল মোড়ল গংদের সাথে বিরোধ চলে আসছে।

গতকাল সোমবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে স্থানীয় আন্দারমানিক বাজার থেকে ভ্যান যোগে দানেস বাড়ি ফিরছিলেন। পথিমধ্যে একই গ্রামের লোকমান আকনের বাড়ীর সংলগ্ন এলাকায় পৌছলে প্রতিপক্ষের ১৫/২০ লোক দানেস সরদারের ওপর হামলা চালিয়ে তাকে ধারালো সেনদ/রামদা দিয়ে কুপিয়ে ফেলে রেখে যায়।

এ সময় দানেসের আত্মচিৎকার শুনে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। রাত ১২টার সময় চিকিৎসাধীন অবস্থায় দানেসের মৃত্যু হয়।

নিহত দানেশের বোন সাথী আক্তার ও শ্যালক সজিব হোসেন বলেন, জয়নাল মোড়ল, শাহীন মোড়ল ও জনি মোড়ল সহ ১৫/২০ জন মিলে আমাদের ভাইকে হত্যা করেছে। আমরা এই হত্যার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।

নড়িয়া থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাফিজুর রহমান বলেন, আমরা প্রাথমিক ভাবে ধারণা করছি স্থানীয় আধিপত্য ও জমি সংক্রান্ত বিরোধে এই হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটতে পারে। এই বিষয়ে তদন্ত চলছে। মামলা হলে পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।