কুষ্টিয়া সংবাদদাতা : প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী বলেছেন, আমি বিশ্বাস করি দরিদ্র অসহায় মানুষকে ন্যায় বিচার পেতে সহায়তা করলে আল্লাহ আমাকে সাহায্য করবেন। দেশের গরিব মানুষের ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠায় প্রচন্ডরকম ও কঠিনভাবে সৎ হতে হবে।

প্রধান বিচারপতি নিযুক্ত হওয়ায় হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীকে সংবর্ধনা ও নৈশভোজ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। বৃহস্পতিবার রাতে কুষ্টিয়া জেলা আইনজীবী সমিতির উদ্যোগে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

কুষ্টিয়া জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি আ স ম আখতারুজ্জামান মাসুমের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রধান বিচারপতি উপস্থিত জজ শিপ ও আইনজীবীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘আপনাদের সকলকে সততার সাথে কাজ করতে হবে। সাধারণ মানুষ যারা বিচার পেতে আসেন তাদেরকে সহায়তা করবেন। যত তাড়াতাড়ি পারবেন তাদের বিচারের সুব্যস্থা করে বাড়ী পাঠাতে পারেন তত ভালো। এতে সাধারণ মানুষের বিচার ব্যবস্থার প্রতি আস্থা ও বিশ্বাস দৃড় হবে। দেশের খেটে-খাওয়া মানুষ যেন ন্যায় বিচার পায় সে বিষয়ে সকলকে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করতে হবে।’

বেঞ্চ ও বারের সঠিক সমন্বয়ে সর্বস্তরে ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব উল্লেখ করে প্রধান বিচারপতি তার বেশ কিছু স্মৃতি রোমন্থন করে বলেন, ‘জীবনে বহু উত্থান-পতন আসবে, ধৈর্য ধরতে হবে, অপেক্ষা করতে হবে। নিমগ্ন সাধনার ভিতরে, সৎ ও পরোপকারী হতে হবে, ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। মানুষ মানুষের ক্ষতি করার চেষ্টা করবে, কিন্তু মনোবল হারালে চলবে না। কারও প্রতিভা ও যোগ্যতার অসম্মান করা ঠিক নয়।’ কীভাবে বহু পরীক্ষার ভিতর দিয়ে নিজেকে আজ এই পর্যায়ে নিয়ে এসেছেন তারও ধারাবাহিক বিবরণ দিয়েছেন তিনি।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বিচারপতি আবু জাফর সিদ্দিকী, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও কুষ্টিয়া সদর আসনের সংসদ সদস্য মাহবুব-উল আলম হানিফ, কুষ্টিয়া-১ দৌলতপুর আসনের সংসদ সদস্য আ ক ম সরোয়ার জাহান বাদশা ও কুষ্টিয়া-৪ কুমারখালী-খোকসা আসনের সংসদ সদস্য ব্যারিষ্টার সেলিম আলতাফ।

অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সুপ্রিম কোর্ট বিভাগের সাবেক বিচারপতি আবু বকর সিদ্দিকী, কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ শেখ আবু তাহের, হাইকোর্টের রেজিষ্টার গোলাম রব্বানীসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।