মিজানুর রহমান মিজান, রংপুর অফিস : আসন্ন ৭ম ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে রংপুর মিঠাপুকুর কাফ্রীখাল ইউনিয়নে সাবেক চেয়ারম্যান মাহামুদুল ইসলাম আওয়ামী লীগ থেকে দলীয় নমিনেশন না পাওয়ায় হতাশ হয়েছেন এলাকাবাসী, সমর্থকসহ নেতাকর্মীরা। মঙ্গলবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে মিঠাপুকুরের কোমরগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে কয়েক হাজার ভক্ত সমর্থকরা জড়ো হয়ে প্রতিবাদ এবং বিদ্রোহী প্রার্থী হওয়ার জন্য মাহামুদল ইসলামকে অনুরোধ করেন।

বুধবার (১২,জানুয়ারি) স্থানীয় এই প্রতিবাদ জনসভায় মিঠাপুকুর কোমরগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে সোমবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে কয়েক হাজার কর্মী ও সমর্থকরা বলেন, মাহামুদুল ইসলাম একজন সৎ ও আদর্শিক ব্যাক্তি তাকে নমিনেশন না দিয়ে দল ভূল কাজ করেছেন। জনসমর্থন ও প্রার্থীর গ্রহণযোগ্যতা সঠিক ভাবে যাচাই-বাছাই না করে জনবিচ্ছিন্ন ব্যক্তি কে মনোনয়ন দেয়ায় হতাশ হয়ে পড়েছেন স্থানীয় নেতাকর্মীরা।

অনেকে মনে করছেন যাকে নৌকা প্রার্থী হিসাবে ঘোষণা করা হয়েছে সে কখনো জয় লাভ করতে পারবে না। তাই মাহমুদুল কে নির্বাচন করার জন্য অনুরোধ করেন। একই প্রতিবাদ মঞ্চে কিছু নেতা কর্মীরা তাকে ভোট থেকে বিরত থাকার অনুরোধও করেন। এ সময় কয়েক হাজার স্থানীয় ভোটারদের কাঁদিয়ে আওয়ামী দলীয় মনোনয়ন না পাওয়ায় হাই কমান্ড দলীয় সিদ্ধান্ত মোতাবেক এবং দলীয় নির্দেশনা অনুযায়ী, আওয়ামী নেত্রী’র দলীয় প্রতীক নৌকা কে শ্রদ্ধা ভরা সম্মান জানিয়ে নির্বাচন থেকে হাজারো ভোটারদের কাঁদিয়ে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন সাবেক এই চেয়ারম্যান। এ সময় সাবেক এই ইউপি চেয়ারম্যান আবেগঘন মুহূর্তে হাউমাউ করে কেঁদে ফেলেন, সাথে কাঁদলেন স্থানীয় হাজারো ভোটার।

স্থানীয় একাধিক সমর্থক ও কর্মীদের অভিযোগ, আওয়ামী দলীয় ভাবে যাকে নৌকা প্রতীকে নমিনেশন দেয়া হয়েছে। স্থানীয় ভোটারদের কাছে তার তেমন কোনো গ্রহণযোগ্যতা নেই। স্থানীয় অনেকের দাবি, আওয়ামী দলীয় ভুল সিদ্ধান্তের কারণে এখানে পরাজিত হবেন জনবিচ্ছিন্ন হীন সদ্য নমিনেশন প্রাপ্ত নৌকা প্রতীক পেয়ে নির্বাচন করছেন যিনি।

এসময় জন বান্ধব তরুণ সাবেক এই চেয়ারম্যান মাহমুদুল ইসলাম বলেন, কেন্দ্রীয়ভাবে দল যাকে নমিনেশন দিয়েছে দলের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে সকল ভোটার ও নেতাকর্মীদের নৌকা প্রতীক কে ভোট দেয়ার অনুরোধ করেন। সেই সাথে সকলকে নৌকা প্রতীককে বিজয়ী করতে সব ধরনের সহযোগিতা করার আহ্বান জানান তিনি।

সাবেক এই জনবান্ধব এই চেয়ারম্যান আরো বলেন,প্রতিক নৌকার প্রতি সম্মান জানিয়ে নির্বাচন থেকে সড়ে আসার ঘোষণা দিলাম। তিনি বলেন দলীয় সিধান্ত আমার সিধান্ত তাই আগামী নির্বাচনে দলের হয়ে কাজ করতে চাই। এ সময় তিনি অশ্রুসিক্ত হয়ে পড়েন, তিনি কর্মী ও সমর্থকদের উদ্দেশে বলেন, আপনাদের সহযোগীতা, সমর্থন, দোয়া ও ভালোবাসা আমাকে মুগ্ধ করেছে। যতদিন বেঁচে থাকব আপনাদের ভালোবাসা নিয়ে বেঁচে থাকতে চাই। আগামী দিনে আপনাদের ভালোবাসা আমাকে আরও অনুপ্রাণিত করবে। এ সময় সকলের কাছে দোয়া চান সাবেক এই ইউপি চেয়ারম্যান।