এম. মনিরুজ্জামান, রাজবাড়ী প্রতিনিধি : রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলায় একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ছুটি চাওয়াকে কেন্দ্র করে নারী সহকারী শিক্ষিকাকে পেটানোর মামলায় প্রধান শিক্ষককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষকের নাম এ কে এম মাহবুবুল হক। তিনি বালিয়াকান্দি উপজেলার নারুয়া ইউনিয়নের পাটকিয়াবাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। ভুক্তভোগী শিক্ষিকা ওই বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক।

বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) দুপুরে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষককে স্কুল থেকে গ্রেপ্তার করে রাজবাড়ী আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, বালিয়াকান্দি উপজেলার পাটকিয়াবাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা নাসিমা খাতুন গত ৬ জানুয়ারি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের নিকট ১১টার সময় বিদ্যালয় ত্যাগের অনুমতি চান। পরবর্তীতে ৮ জানুয়ারি ১১টার সময় বিদ্যালয়ে এসে প্রধান শিক্ষকের নিকট ১১টায় বিদ্যালয় ত্যাগ করার পুনরায় অনুমতি চান।

এ সময় প্রধান শিক্ষক জানায়, বেলা ১টার আগে বিদ্যালয় ত্যাগ করা যাবে না।

এ সময় সহকারী শিক্ষিকা গত বৃহস্পতিবারে বিষয়টি মৌখিকভাবে জানিয়েছেন বলে জানালে প্রধান শিক্ষক বলেন, তোমাকে কি জবাবদিহি করতে হবে। এই কথা বলে প্রধান শিক্ষক সহকারী শিক্ষিকার চুলের মুঠি ধরে মাটিতে ফেলে দেয় এবং পায়ের জুতা খুলে পেটাতে থাকেন। এ সময় বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক শিরিন সুলতানা ও পাটকিয়াবাড়ী দাখিল মাদ্রাসার পিওন এসে শিক্ষকের হাত থেকে তাকে উদ্ধার করে।

পরে গত ৯ জানুয়ারি সহকারী শিক্ষক নাসিমা খাতুন উপজেলা নির্বাহী অফিসার, উপজেলা শিক্ষা অফিসার, বালিয়াকান্দি থানাসহ বিভিন্ন দপ্তরে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

বালিয়াকান্দি উপজেলা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সভাপতি শহিদুল ইসলাম বলেন, বিদ্যালয়ে শিক্ষকদের এমন আচরণ মোটেই কাম্য নয়। নারী শিক্ষকের ঘটনায় আমরা সত্যিই লজ্জিত।

বালিয়াকান্দি থানার এসআই আসাদুজ্জামান রিপন বলেন, বুধবার রাতে ওই শিক্ষিকা বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলার আসামি প্রধান শিক্ষক একেএম মাহবুবুল হককে বৃহস্পতিবার ১১টার দিকে গ্রেপ্তার করে রাজবাড়ী আদালতে পাঠানো হয়েছে।