হুমায়ুন কবির জুশান, কক্সবাজার : বিজিবির রামুর সেক্টর কমান্ডার কর্নেল আজিজুর রউফ বলেন, ‘সান্ডে একজন নারীর নাম। ওই নারীর পরিবার এই ইয়াবা উৎপাদন করে। বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো সান্ডের চালান ধরা পড়ল।’

ইয়াবার নতুন ব্র্যান্ড সান্ডের চালান আটকের কথা জানিয়েছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)। বাহিনীটির দাবি, দেশে প্রথমবারের মতো সান্ডের চালান ধরা পড়ল। এ ঘটনায় ৫ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে বিপুল পরিমাণ ইয়াবা।

কক্সবাজারের উখিয়ার রাজাপালংয়ের সীমান্ত এলাকায় ১৯ থেকে ২২ এপ্রিল মধ্যরাত পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে এগুলো জব্দ করা হয়।

গ্রেপ্তার পাঁচজন হলেন উখিয়ার জালিয়াপালংয়ের মো. মাহবুব, সুফিয়া সুলতানা সুমি, করইবুনিয়া এলাকার ফাতেমা বেগম, উখিয়ার চাকবৈটা দিঘীনালা এলাকার রফিক উল্যাহ ও বড়ইতলী এলাকার রফিকুল আলম।
কক্সবাজার-৩৪ বিজিবির অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মেহেদী হাসান কবির শনিবার দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, ১৯ থেকে ২২ এপ্রিল মধ্যরাত পর্যন্ত করইবুনিয়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে ফাতেমার স্বামী ইকবাল হোসেনের বাড়ি থেকে ৫০ হাজার পিস ইয়াবাসহ চারজনকে আটক করা হয়। এরপর রেজুপাড়া থেকে আরও ৬ লাখ ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। সব শেষ গর্জনবুনিয়া থেকে ৪০ হাজার ইয়াবাসহ রফিকুল আলমকে আটক করে বিজিবি।

মেহেদী বলেন, ‘মূলত ঈদকে টার্গেট করে মিয়ানমার থেকে এই চালানটি এসেছে। কয়েক হাত ঘুরে রাজধানী পৌঁছাত। ঢাকায় ইয়াবার নতুন ব্র্যান্ড সান্ডের চাহিদা বেশি। জব্দ করা ৬ লাখ ৯০ হাজার ইয়াবার মধ্যে ৩ লাখ সান্ডে ব্র্যান্ডের। শনিবার সকালে উখিয়া থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করে পাঁচজনকে হস্তান্তর করা হয়েছে। পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার দেখিয়েছে।’

বিজিবির রামুর সেক্টর কমান্ডার কর্নেল আজিজুর রউফ বলেন, সান্ডে একজন নারীর নাম। ওই নারীর পরিবার এই ইয়াবা উৎপাদন করে। দেশে প্রথমবারের মতো সান্ডের চালান ধরা পড়ল।