খোলাবার্তা২৪ ডেস্ক : নরওয়েতে এক ব্যক্তি তীর-ধনুক ব্যবহার করে হামলা চালানোর ঘটনায় পাঁচজন নিহত এবং আরো দুইজন আহত হয়েছেন।

স্থানীয় সময় বুধবার সন্ধে সাড়ে ছয়টার দিকে রাজধানী অসলো থেকে দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থিত কংসবার্গ শহরে এ হামলার ঘটনা ঘটে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

হামলাকারীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আহতদেরকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, শহরের কেন্দ্রস্থলে এই ঘটনা ঘটেছে। বহু মানুষ সে সময় ওই জায়গায় ছিলেন। আচমকাই তাদের উপর তীর ছুঁড়তে থাকে ওই ব্যক্তি। পালানোর আগেই পাঁচজন তীরবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান। আহত হয়েছেন আরো দুইজন। তারা একটি মুদির দোকানের সামনে ছিলেন।

ঘটনার আকস্মিকতা কাটিয়ে মানুষ পালাতে শুরু করেন। কিছুক্ষণের মধ্যেই ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌঁছে যায়। হামলাকারীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। তবে আটক ব্যক্তির নাম প্রকাশ করা হয়নি। কেন সে হামলা চালালো, তা এখনো স্পষ্ট নয়। এর সঙ্গে কোনো জঙ্গি গোষ্ঠীর সম্পর্ক আছে কি না, তা-ও এখনো স্পষ্ট নয়।

তবে নরওয়ের পুলিশ সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছে, তাদের ধারণা, ওই ব্যক্তির পিছনে কোনো গোষ্ঠী নেই। কিন্তু কেন সে এমন হামলা চালালো, তা এখনো স্পষ্ট নয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, ঘটনাস্থলে পৌঁছেই পুলিশ সাধারণ মানুষকে নিরাপদ দূরত্বে সরে যাওয়ার জন্য আর্জি জানাতে থাকে। পুলিশ সশস্ত্র অবস্থায় এসেছিল বলে জানা গেছে। সাধারণত স্ক্যানডেনেভিয়ার দেশগুলিতে পুলিশ প্রয়োজন ছাড়া সশস্ত্র অবস্থায় রাস্তা নামে না।

ঘটনার কিছুক্ষণের মধ্যেই দেশের প্রেসিডেন্ট এবং প্রধানমন্ত্রী শোক প্রকাশ করেছেন। দুইজনেই ঘটনাটিকে মর্মান্তিক বলে ব্যাখ্যা করেছেন। তবে এখনো পর্যন্ত কেউই ঘটনাটিকে সন্ত্রাসী হামলা বলে ব্যাখ্যা করেনি।

ঠিক ১০ বছর আগে নরওয়েতে আরো একটি হামলার ঘটনা ঘটেছিল। তাতে ৭৭ জনের মৃত্যু হয়েছিল।