বগুড়া প্রতিনিধি : সারাদেশের ন্যায় বগুড়াতেও বছরের প্রথম দিন বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বিনামূল্যে বই বিতরণ করা হয়েছে। তবে বছরের প্রথমদিন সরকারী বিদ্যালয়ে বই বিতরন করা হলেও বেসরকারী প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বগুড়া জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, ২০২২ শিক্ষাবর্ষে বগুড়ার ১৬০১ টি সরকারি এবং প্রায় ৫ শতাধিক বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রাথমিক শাখা রয়েছে।

এতে প্রায় তিন লাখ শিক্ষার্থীর সব মিলিয়ে এবছর মোট বইয়ের চাহিদা রয়েছে ২০ লাখ ৩৯ হাজার ৬৪ টি। এর মধ্যে বুধবার পর্যন্ত বরাদ্দ পাওয়া গেছে ১৯ লাখ ৬৮ হাজার ৫৬৪ টি যা মোট চাহিদার ৯৮ দশমিক ২৭ ভাগ। জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার তাহমিনা খাতুন জানান, প্রাইভেট (কেজি) স্কুলগুলো পরিদর্শন শেষে বই দেয়া হবে। কারন অনেক কেজি স্কুল বন্ধ রয়েছে।

জেলা শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে বগুড়ায় মাধ্যমিক শাখায় প্রায় আড়াই লাখ শিক্ষার্থীদের বইয়ের চাহিদা রয়েছে ৩৬ লাখ ১ হাজার ৯৮৮ টি। এর মধ্যে বরাদ্দ পাওয়া গেছে ১৮ লাখ ৯ হাজার ৪৮৩ টি যা মোট চাহিদা ৫৯ ভাগ। জেলা শিক্ষা অফিসার রমজান আলী আকন্দ জানান, বই যা পাওয়া গেছে তা স্কুলে স্কুলে বিতরণ করা হয়েছে। যে গুলো এখনো হাতে পাওয়া যায়নি তা হাতে পেলেই বিতরণ করা হবে। বদ্যালয়ের অনেক শিক্ষার্থী নতুন বই হাতে পায়নি। তাই বই না পেয়ে অনেকেই হতাশা প্রকাশ করেছে।

এদিকে শনিবার বগুড়া বিয়াম মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজে এ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মোঃ জিয়াউল হক। এসময় জেলা শিক্ষা অফিসার রমজান আলী আকন্দ, প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ মুহাঃ মোস্তাফিজুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

এ ছাড়া জেলা প্রশাসক সদরের ঝোপগাড়ী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, ফুলবাড়ী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও মানিকচক সরকারী প্রাথমিক বিধ্যালয়ে নতুন বই বিতরন করেন।

এ সময় সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আবু সুফিয়ান সফিক ও জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার তাহমিনা খাতুনসহ শিক্ষা কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া বগুড়া আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন স্কুল অ্যান্ড কলেজে বই বিতরণ উদ্বোধন করেন প্রতিষ্ঠানের সভাপতি এবং ৪ এপিবিএন বগুড়ার অধিনায়ক পুলিশ সুপার জয়নাল আবেদীন রাজু। এসময় প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ এটিএম মোস্তফা কামাল উপস্থিত ছিলেন। নতুন বই হাতে পেয়ে আনন্দ উচ্ছাস করেছে অনেক শিক্ষার্থী।