বগুড়া অফিস : বগুড়ার ধুনট উপজেলায় যমুনা নদীতে অভিযান চালিয়ে খননযন্ত্র দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের অভিযোগে ভ্রাম্যমাণ আদালধুনটে যমুনায় বালু উত্তোলনের দায়ে ৫ জনের জেল : শ্যালোমেশিন জব্দত ৫ জনের ১৫দিন করে বিনাশ্রম কারাদন্ড দিয়েছে। এসময় বালু উত্তোলন কাজে ব্যবহৃত ১টি বাল্কহেড ও ৪টি শ্যালো মেশিন জব্দ করা হয়েছে।

সোমবার সকাল ৯টার দিকে ধুনট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সঞ্জয় কুমার মহন্ত এ দন্ডাদেশ দেন।

দন্ডপ্রাপ্ত আসামীরা হলো, সিরাজগঞ্জের কাজিপুর উপজেলার মাইজবাড়ি গ্রামের ওসমান মন্ডলের ছেলে সুমন মিয়া (৩২), আব্দুর রশিদের ছেলে বুলবুল সেখ (২৫), আনছার আলীর ছেলে সোহাগ মন্ডল (১৯) ও ভাঙ্গারছেউ গ্রামের জহুরুল ইসলামের ছেলে রুহুল আমিন (৩৫) ও সারিয়াকান্দি উপজেলার চর মাঝিড়া গ্রামের আকবর ব্যাপারীর ছেলে ফজলুল বারী (৩৫)। এদের মধ্যে সুমন মিয়া বালু ব্যবসায়ী এবং অন্যরা বালু উত্তোলন কাজের শ্রমিক।

ইউএনও অফিস সূত্রে জানা যায়, যমুনা নদীর বৈশাখী চর এলাকা থেকে দীর্ঘদিন ধরে খননযন্ত্র দিয়ে অবৈভভাবে বালু উত্তোলনের পর বিক্রি করে স্থানীয় প্রভাবশালী একটি চক্র। এতে চর এলাকায় নদী ভাঙন দেখা দিয়েছে। ফলে চরবাসির আবাদি জমি নদীগর্ভে বিলীন হয়।

এর প্রতিকার চেয়ে ৪ সেপ্টেম্বর স্থানীয়দের পক্ষে বৈশাখী গ্রামের হারুন অর রশিদ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ দেন। ওই অভিযোগের ভিত্তিতে সোমবার যমুনা নদীতে অভিযান চালায় ভ্রাম্যমাণ আদালত।

ধুনট থানার এসআই রুহুল আমীন বলেন, ভ্রাম্যমাণ আদালতে দন্ডপ্রাপ্ত আসামীদের বগুড়া জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।