বগুড়া অফিস ধুনট সংবাদদাতা : বগুড়া ধুনটে ধর্ষণ মামলার বাদিকে মামলা তুলে নিতে হুমকি দিচ্ছে আসামীরা। এ ঘটনায় থানায় জিডি করা হলেও পুলিশ কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ধুনট উপজেলার এলাঙ্গী ইউনিয়নের রাঙ্গামাটি গ্রামের মিজানুর রহমানের ছেলে রিমন ডিম ভাজির কথা বলে গত ২০২১ সালের ১৮ এপ্রিল নবম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে ধর্ষণ করে। এ সময় ছাত্রী চিৎকার দিলে প্রাণ নাশের হুমকি দেয়। ওই ঘরের ভিতরে লুকিয়া থাকা রিমনের সহযোগি নুরুরনবী (২২) নয়ন (২১) রাব্বী (২২) ধর্ষণের দৃশ্য মোবাইল ফোনে ভিডিও করে পরে ঐ তিনজন ধারণকৃত ভিডিও মামলার বাদি সুজনী খাতুন (ছাত্রীর মাতা )কে দেখায় এবং পঞ্চাশ হাজার টাকা দাবী করে। টাকা না দিলে উক্ত ধর্ষণ দৃশ্য ইন্টারনেটে ছড়াইয়া দিবে।

বাদি ভয়ে দশ হাজার টাকা দেওয়ার কথা স্বীকার করে এবং বলে বাবা তোমরা ছবিগুলো মুছে ফেল। কিন্তু তার ছবিগুলো মুছে না দিয়ে ফেরত যায়। অবশেষে ২০২১ সালের ১১ মে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল বগুড়া-২ আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। এরপর থেকে প্রায়ই মামলা তুলে নেওয়ার জন্য আসামীগণ হুমকী দিতো।

বাদি মামলা তুলে না নেয়ায় গত ২৯ এপ্রিল ২০২২ আসামী রিমনের পিতা মিজানুর রহমান ফকির তার সঙ্গীয় ১০-১২ জন সন্ত্রাসী নিয়ে বাদির বাড়ীতে হামলা চালায় এবং বাদিনীর ঘরের আসবাবপত্র ভাংচুর করে আর বলে মামলা না তুললে তোদের বাড়ি থেকে বের হতে দিব না এবং খুন জখম করে লাশ গুম করবো।

এ ঘটনায় বাদি গত ৩০ এপ্রিল ২০২২ ধুনট থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেছেন। কিন্তু পুলিশ কোন পদক্ষেপ নেয়নি।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ধুনট থানার এস আই আবু তাহের বলেন, বিষয়টি সরেজমিনে পরিদর্শন করা হয়েছে। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।