জিএম ফাতিউল হাফিজ বাবু, বকশীগঞ্জ (জামালপুর) প্রতিনিধি : জামালপুরের বকশীগঞ্জে স্বাধীনতার ৫০ বছর পর চেয়ারম্যান পদে জয় পেয়েছে আওয়ামী লীগ।

গত ৫ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত ধানুয়া কামালপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে এই প্রথম বারের মত জয়ের মুখ দেখলো ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ। ধানুয়া কামালপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সভাপতি মশিউর রহমান লাকপতি নৌকা প্রতীক নিয়ে সেই জয় নিশ্চিত করেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বকশীগঞ্জ উপজেলার ধানুয়া কামালপুর ছিল মহান মুক্তিযুদ্ধের ১১ নম্বর সেক্টর। এই ইউনিয়নকে আওয়ামী লীগের ঘাঁটি বলা হলেও স্বাধীনতার ৫০ বছরেও কোন নির্বাচনে জয় পান নি স্থানীয় আওয়ামী লীগ। দলের ভেতর কোন্দল, নেতৃত্বের অভাব, শক্তিশালী প্রার্থী না থাকা সহ বিভিন্ন কারণে এই ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ বা আওয়ামী লীগ সমর্থিতরা পেরে উঠতে পারেন নি। অবশেষে জয় ধরা দিয়েছে যুবলীগ নেতা মশিউর রহমান লাকপতির হাত ধরে।

এই ইউনিয়নে মুসলিম লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি, স্বতন্ত্র প্রার্থীরা বার বার চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হলেও জয় অধরা থেকেছে আওয়ামী লীগের। সর্বশেষ ধানুয়া কামালপুর ইউনিয়নে টানা তিন বার নির্বাচিত হন বর্তমান চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল। এর আগে বিএনপির মজিবর রহমান, জাতীয় পার্টির ভূমিহীন গোলাম মোস্তফা সহ অনেকেই চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।

তবে কোন দিনও চেয়ারম্যান পদটি দখলে নিতে পারেন নি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কোন নেতা। বর্তমান ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসান জুবায়ের হিটলার বার বার নির্বাচন করেও জয়ের স্বাদ পান নি। অবশেষে সেই জয় এনে দেন বর্তমান নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মশিউর রহমান লাকপতি। তিনি বর্তমান সভাপতি হাসান জুবায়ের হিটলারের ছোট ভাই। বয়সে তরুন মশিউর রহমান লাকপতি পঞ্চম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের কাছে দলীয় মনোনয়ন চাইলে দল তাকে নৌকা প্রতীক দিয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার সুযোগ দেন। আর সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে গত ৫ জানুয়ারি নির্বাচনে বাজিমাত করে দেন তিনি।

ধানুয়া কামালপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সর্বস্তরের নেতা কর্মীকে সাথে নিয়ে দিনরাত ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ঘুরে জয়ের মালা নিজের গলায় পরাতে সক্ষম হন মশিউর রহমান লাকপতি। দলের ভেতর কোন্দল থাকলেও তার বেলায় ছিল সকলের এক সুর। তাই সবার প্রচেষ্টার ফসল হিসেবে প্রথম বারের মত ধানুয়া কামালপুর ইউনিয়নে জয় নিশ্চিত হয় আওয়ামী লীগের। এই জয়ের পর স্বস্তি ফিরেছে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সর্বস্তরের নেতা কর্মীর মধ্যে।

ধানুয়া কামালপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মশিউর রহমান লাকপতি জানান, দল আমাকে নৌকা প্রতীক দিয়েছিল তাই আমি জনগণকে আমার উপর আস্থা রাখতে বলেছিলাম। জনগণ সবকিছু বিবেচনা করে ভোট দিয়ে আমাকে জয়যুক্ত করেছেন। তবে যতদিন বেঁচে থাকব ততদিন মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাবো।

এ বিষয়ে বকশীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মোকারেছ খোকন জানান, নেতা কর্মীদের অক্লান্ত পরিশ্রম ও প্রার্থীর বিরামহীন প্রচারণার কারণে স্বাধীনতার পর এই প্রথম ধানুয়া কামালপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছে।

দলমত নির্বিশেষে এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের বার্তা মানুষকে পৌঁছে দেওয়ায় মানুষ ভালমন্দ করে সরকার দলীয় প্রার্থীকে বিজয়ী করেছেন। এই জয়ের মাধ্যমে জনগণের ইচ্ছার যেমন প্রতিফলন ঘটেছে তেমনি দলের গ্রহণযোগ্যতাও বৃদ্ধি পেয়েছে।