এম. মনিরুজ্জামান, রাজবাড়ী প্রতিনিধি : রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে পদ্মা নদীতে ৪ কেজি ২শ গ্রাম ওজনের সাড়ে ৩ ফিট লম্বা একটি বাঙ্গোশ (বাওস) মাছ ধরা পড়েছে।

মঙ্গলবার ২৭ জুলাই দৌলতদিয়া ইউনিয়নের কর্ণেশনা কলাবাগান এলাকার অদূরে পদ্মা নদীতে স্থানীয় মৌসুমী মৎস্য শিকারী বাচ্চু শেখের চায়না দুয়ারীতে অদ্ভূত এ মাছটি ধরা পড়ে।

পরে মাছটি বিক্রির উদ্দেশ্যে দৌলতদিয়া বাইপাস সড়কের পাশে দুলাল চালাকের আড়ৎ-এ আনলে, সেখানে শাকিল সোহান মৎস্য আড়ৎ-এর মালিক সম্রাট শাহজাহান শেখ উন্মুক্ত নিলামে সর্বোচ্চ দরদাতা হিসাবে ১১শ’ টাকা কেজি দরে মোট ৩ হাজার ৫শ’ ২০টাকায় মাছটি কিনে নেন।

এ সময় অদ্ভূত প্রকৃতির এ মাছটি দেখতে স্থানীয়রা ভিড় করেন।

এই মাছ সম্পর্কে ওই ব্যবসায়ী বলেন, এই মাছের অরিজিনাল নাম বাওস হলেও স্থানীয়ভাবে আমরা এটাকে বাঙ্গোশ বলে থাকি। এ মাছ সাধারণত সমুদ্রে পাওয়া যায়। কিন্তু বছরের আষাঢ়, শাওন মাসের দিকে মাঝে মাঝে প্রত্যন্ত অঞ্চলের পদ্মায় মাছটি পাওয়া যায়। এই মাছটির দ্বারা শারীরের ব্যথা উপশম হয় এবং মাছটি খুবই সুস্বাদু তাই মাছটি পরিবার-পরিজনদের নিয়ে খাওয়ার জন্যই কিনেছি। আগেও পদ্মারর খাড়িতে এই রকম বাঙ্গোশ মাছ পাওয়া যেত।

গোয়ালন্দ উপজেলার ভারপ্রাপ্ত মৎস্য কর্মকর্তা মো. রেজাউল শরীফ বলেন, আঞ্চলিক ভাষায় এটিকে বাঙ্গোশ বললেও মূলত এই মাছের নাম বাওস। এটি সামুদ্রিক মাছ। সমুদ্র তীরবর্তী অঞ্চলে এসব মাছ মাঝেমধ্যে ধরা পড়ে। বাওস মাছ প্রায় ২০ কেজি পর্যন্ত ওজন এবং অনেক সুস্বাদু ও দামি হয়। এর ওষুধি গুনও আছে।

এ বিষয়ে তিনি আরো বলেন, এ ধরনের সামুদ্রিক মাছ, বিলুপ্তপ্রায় মাছ ও দেশীয় প্রজাতির বিভিন্ন মাছ সংরক্ষণের জন্য আমরা কুশাহাটা এলাকার তিনটি বদ্ধজলমহালে অভয়াশ্রম করতে উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদেরকে অবহিত করেছি।