তৌহিদ চৌধুরী প্রদীপ, সুনামগঞ্জ : সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে বাল্কহেডের ধাক্কায় যাত্রীবোঝাই খেয়া নৌকা পাড়াপাড়ের সময় ডুবে অনেকে নিখোঁজ আছেন বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা।

শুক্রবার রাত ৮ টার দিকে উপজেলা সদরের আজমপুর খেয়া ঘাটে এ দুর্ঘটনায় খবর পাওয়া গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শুক্রবার রাত ৮ টার দিকে ৩০/৩৫ জন যাত্রী নিয়ে দোয়ারাবাজারের বাজার ঘাট থেকে একটি খেয়া নৌকা আজমপুর ঘাটে যাচ্ছিল। মাঝ নদীতে যাওয়ার পর ছাতক থেকে ছেড়ে আসা মাল বোঝাই একটি বাল্কহেড খেয়া নৌকাকে সজোরে ধাক্কা দেয়। আকস্মিক ধাক্কায় নৌকার অনেক যাত্রী নদীতে পড়ে যান। পরে তাদের কেউ কেউ সাঁতরে তীরে উঠলে অনেকে নিখোঁজ থাকতে পারেন বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন স্থানীয়রা।

জনা গেছে এ ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্ত ১০ জন। আহতরা হলেন আব্দুল জব্বার (৫৫) পিতা জোয়াদ আলী বাড়ি আজমপুর তাকে প্রথমে দোয়ারাবাজার হাসপাতাল পরে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আকবর আলী (৬০), জাকির হোসেন (২৪) বাড়ি আজমপুর। লায়েবা (২২) বাড়ি কাটাখালী ও আজগর আলী (৩০) বাড়ি সুনামগঞ্জ। আহত অন্যান্যরা দোয়ারাবাজার হাসপাতালে ও স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নিচ্ছন বলে জানা গেছে।

স্থানীয়রা জানান, অন্ধকার থাকায় ক্ষয়ক্ষতি সম্পর্কে এখনো সুষ্পষ্ট ধারণা পাওয়া যাচ্ছে না। তবে ধারণা করা হচ্ছে পানিতে পড়ে যাওয়া কেউ কেউ নিখোঁজও থাকতে পারেন।

দোয়ারাবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দেবদুলাল ধর বলেন, খেয়া নৌকাকে ধাক্কা দেওয়া বাল্কহেডের ৫ জন মাঝিকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। এ ছাড়া নৌকাটি জব্দ করা হয়েছে।

এই ঘটনায় কেউ নিখোঁজ কি-না, থাকলে কত জন- ঘটনাটি রাতে ঘটার কারণে কিছু বলা যাচ্ছে না বলে জানান তিনি।

দোয়ারাবাজার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফারজানা প্রিয়াংকা বলেন, প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে ফায়ার সার্ভিস, পুলিশ ও স্থানীয় জনতা দুর্ঘটনাস্থলে উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছেন। কেউ নিখোঁজ আছে কি না তা অনুসন্ধান চালছে। দুর্ঘটনায় আহত ৫ জনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়েছে।