গাজীপুর মহানগর প্রতিনিধি : গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বলেছেন, চাঁদাবাজি-ধান্ধাবাজি করে দলকে (আওয়ামী লীগকে) যাতে কেউ খাট করতে না পারেন এবং কারোর কাছে যেন হাত পাততে না হয় সেজন্য দলের জন্য নিজের সব বিলিয়ে দিয়েছি।

আমি উত্তরায় পরিবার নিয়ে থাকতে পারতাম, কিন্তু এলাকায় রাস্তার পাশে বাড়ি করে থাকি; যাতে সব সময় নগরবাসী ও দলীয় নেতাকর্মীরা আমাকে কাছে পায়। আমার দরজা সবার জন্য সব সময় খোলা। বাড়িতে কোন গেট রাখিনি এবং দরজা বন্ধ করে ঘুমাই না। যাতে সবাই সব সময় আমাকে কাছে পায়। এভাবে দলকে শক্তিশালী করেছি বলেই আজ আমার বিরুদ্ধে ও দলের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র হচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে মহানগর মহিলা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে শহরের রাজবাড়ি রোডস্থ দলীয় কার্যালয় প্রাঙ্গনে আয়োজিত এক নারী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বিদেশ সফরকালে সেদেশে বিএনপি-জামাতের বিক্ষোভ মিছিল আর দেশে তার (মেয়রের) বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল একই সূত্রে গাঁথা মন্তব্য করে মেয়র ষড়যন্ত্রকারীদের হুঁশিয়ার করে বলেন, কে কী করেন সবার নথি আমার কাছে আছে। প্রধানমন্ত্রী ও আমার ছবি সম্বলিত ব্যানার পুড়িয়ে কী বুঝাতে চান তা আমরা বুঝি। এমন কিছু করবেন না যাতে দলের ভাবমূর্তি নষ্ট হয়।

তিনি আরো বলেন, সবাইকে সাথে নিয়েই গাজীপুরকে একটি পরিকল্পিত সমৃদ্ধশালী আধুনিক নগরী গড়তে চাই। এলাকার মন্ত্রী, এমপি ও সিনিয়র নেতাদের সাথে নিয়েই কাজ করতে চাই। উদ্দেশ্যমূলকভাবে আন্দোলনের নামে কেউ এমন কিছু করবেন না যাতে নগরির উন্নয়ন ব্যহত হয়।

মেয়র প্রতিপক্ষের উদ্দেশ্যে বলেন, আল্লাহর কসম করে বলছি, আমি বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কোনো কটুক্তি করিনি, মিথ্যা অপবাদ দিয়ে কোন লাভ হবে না। যে কোনো পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে প্রস্তুত আছি, যে কোন ট্রাইব্যুনালে যেতে রাজি আছি। যত মামলা দেন আমার নামে দেন মাথা পেতে নেব। আমি জেলে যেতে রাজি, পদ ছেড়ে দিতে রাজি, তবুও দয়া করে আমার একজন সমর্থকের গায়েও হাত তুলবেন না, নগরবাসীর কোনো ক্ষতি করবেন না।

মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী সেলিনা ইউনুসের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদিকা ফাহিমা আক্তার হোসনার সঞ্চালনায় সমাবেশে আরো বক্তব্য দেন, মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রউফ নয়নসহ আওয়ামী লীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের নেতারা।