৩৫৫ জনের মতো নিখোঁজ

খোলাবার্তা২৪ ডেস্ক : দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিউলে এক হ্যালোইন উৎসব উদযাপনের জন্য সমবেত হওয়া মানুষের ভিড়ে চাপা পড়ে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত অন্তত ১৫১ জন নিহত এবং আরো ১৫০ জন আহত হয়েছে।

মৃতদের অধিকাংশের বয়স কুড়ির কোঠায় বলে জানাচ্ছেন স্থানীয় কর্মকর্তারা। মৃতদের মধ্যে তিনজন চীনা নাগরিকসহ ১৯ জন বিদেশি রয়েছেন।

সিউলের পুলিশ বলছে- এখনো পর্যন্ত ৩৫৫ জনের মতো নিখোঁজ রয়েছেন বলে তাদের কাছে তথ্য রয়েছে।

বেঁচে যাওয়া অনেকেই বলছেন, বেশি মানুষ সরু গলিতে জড়ো হয়েছিলেন, একে অপরের গায়ে লেপ্টে ছিল মানুষজন। তারা একসময় আর নি:শ্বাস নিতে পারছিলেন না। ভিড় সামাল দিতে হিমশিম খাচ্ছিল ঘটনাস্থলে উপস্থিত পুলিশ।

করোনাভাইরাস মহামারি শুরুর পর মাস্ক পরা ও সামাজিক দূরত্বের বিধিনিষেধ উঠে যাওয়ার পর দেশটিতে এটি ছিল উন্মুক্ত স্থানে প্রথম হ্যালোউইন অনুষ্ঠান।

সিউলের একজন চিকিৎসক বলেন, মৃতের সংখ্যা এত দ্রুত বাড়ছিল যে সেখানে চিকিৎসা সহায়তা দিতে আসা কর্মীরা সামাল দিতে পারছিলেন না।

স্থানীয় একটি টেলিভিশন চ্যানেলে তিনি বলেছেন, প্রথমে আমি রাস্তায় পড়ে থাকা দুইজনকে প্রাথমিক সহায়তা দিয়েছিলাম। কিন্তু হঠাৎ সংখ্যা মারাত্মকভাবে বেড়ে গেল। এটা বুঝিয়ে বলা খুব কঠিন। এই ঘটনার শিকার এতগুলো মুখ পুরো ফ্যাকাসে, আমি তাদের পালস পাচ্ছিলাম না, তাদের অনেকের নাক রক্তাক্ত ছিল।

সিউল শহরের একটি জনপ্রিয় নৈশ বিনোদন এলাকা ইতেওন-এ হ্যালোউইন উদযাপনের জন্য প্রায় এক লক্ষ লোক সমবেত হয়েছিল বলে খবরে বলা হয়।

এক খবরে বলা হয়, স্থানীয় সময় রাত দশটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে একজন দমকল কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ওই এলাকার একটি পাহাড়ের ওপরদিকে থাকা লোকেরা নিচে পড়ে গেলে একটি সরু গলিতে থাকা বিপুল সংখ্যক মানুষের মধ্যে হুড়োহুড়ির সৃষ্টি হয়।

তবে কর্তৃপক্ষ বলছে, কী কারণে এই দূর্ঘটনা ঘটলো তা তারা এখনো জানার চেষ্টা করছে। ঘটনা তদন্তে কাজ চলছে।

একজন প্রত্যক্ষদর্শী বিবিসিকে বলেছেন, ওই এলাকায় হাজার হাজার লোকের ভিড় জমে গিয়েছিল এবং ভিড়ে চাপা পড়া থেকে বাঁচতে তারা বড় রাস্তায় বেরিয়ে এসেছিলেন।

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট ইউন সুক ইওল দেশটিতে জাতীয় শোক ঘোষণা করেছেন।

প্রেসিডেন্ট ইউন সুক ইওল বলেন, আমার হৃদয় ভারাক্রান্ত। এই শোক কাটিয়ে ওঠা কঠিন। মানুষের জীবন ও তার নিরাপত্তার জন্য নিজের দায় অনুভব করছি।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন, কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোসহ বিশ্ব নেতারা এই ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছেন।