তেঁতুলিয়া (পঞ্চগড়) প্রতিনিধি : পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলা মডেল মসজিদের নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। আগামী ডিসেম্বর মাসের যে কোন তারিখে শুভ উদ্বোধন।

জানা যায়, গণপূর্ত অধিদপ্তরের মাধ্যমে নির্মাণাধীন মডেল মসজিদের ভৌত অবকাঠামো নির্মিত হচ্ছে। মডেল মসজিদ বাস্তবায়নকারী সংস্থা বাংলাদেশ ইসলামিক ফাউন্ডেশন। নর্দান টেকনো ট্রেড নামের ঠিকাদারী একটি প্রতিষ্ঠান মসজিদটির নির্মাণ কাজ ইতোমধ্যে সম্পন্ন করেছে।

২০১৯ সালের জুনের দিকে উপজেলা সদরের প্রাণ কেন্দ্র সাহেবজোত (ডাঙ্গিবস্তি) নামকস্থানে তেঁতুলিয়া অডিটরিয়াম কাম-কমিউনিটি সেন্টার ঘেঁষে ৪২ শতক জমির উপর ১১ কোটি ৯২ লাখ ৭২ হাজার ৩১৮ টাকা ব্যয়ে মডেল মসজিদ ও ইসলামী সাংস্কৃতিক কেন্দ্রটি নির্মিত হচ্ছে।

আধুনিক ও তথ্যপ্রযুক্তি সম্বলিত মনোমুগ্ধকর নির্মাণ শৈলী দ্বারা নির্মিত তিনতলা বিশিষ্ট মডেল মসজিদের নিচতলা ১৭ হাজার বর্গফুট, ১ম তলা ৯ হাজার ৮শ বর্গফুট, ২য় তলা ৯ হাজার ৮শ বর্গফুট। এই নয়নাভিরাম নির্মাণশৈলী নির্মাণ কাজ চলতি বছরে শেষ হয়েছে। আগামী ডিসেম্বর মাসের যে কোন তারিখে উদ্বোধন করার কথা রয়েছে।

মসজিদের ভিতরে একাধারণে নিরাপত্তার জন্য তৈরি করা হয়েছে সিকিউরিটি গার্ড রুম ও গাড়ি পার্কিং জোন। মসজিদের ভিতরে ৩য় তলায় পুরুষ মুসল্লীদের পাশাপাশি নারী মুসল্লীদের জন্য নামাজ আদায়ের পৃথক ব্যবস্থা।

এ ছাড়া শিশুশিক্ষা, ইসলামী লাইব্রেরী, ইসলামী রিসার্চ সেন্টার, ইমামদের প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, গণশিক্ষা কেন্দ্র, ইসলামী সংস্কৃতি কেন্দ্র, ইসলামিক বই বিক্রয় কেন্দ্র, প্রতিবন্ধীদের কক্ষ, অতিথিশালা, বিদেশি পর্যটকদের আবাসন, কনফারেন্স হলরুম, লাশ গোসলের ব্যবস্থা ও সুদৃশ্য সাড়ে ৯ তলাবিশিষ্ট মিনার।

মনোমুগ্ধকর নির্মাণশৈলী দ্বারা নির্মিত দৃষ্টিনন্দন আধুনিক সুযোগ সুবিধা সমৃদ্ধ মসজিদটি একনজর দেখে মন জুড়িয়ে যায়। উপজেলা সদরের প্রাণ কেন্দ্রে মসজিদটির অবস্থান হওয়ায় খুব খুশি এলাকাবাসী ও সুশিল সমাজের ব্যক্তিবর্গ। স্থানীয় নাগরিকরা মনে করেন এ মসজিদটি পর্যটন শিল্পের ক্ষেত্রেও অনেক গুরুত্ব বহন করবে।

জেলা গৃহায়ণ ও গণপূর্ত কার্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মনিরুজ্জামান জানান, তেঁতুলিয়া উপজেলা মডেল মসজিদের নির্মাণ কাজ প্রায় শেষ হয়েছে। নভেম্বরের মধ্যে সব কাজ গণপূর্ত অধিদপ্তরের অধীনে দেয়ার কথা রয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক উদ্বোধনের পর মডেল মসজিদ মুসল্লিদের নামাজের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সোহাগ চন্দ্র সাহা জানান, দেশের অন্যান্য উপজেলার ন্যায় তেঁতুলিয়া উপজেলায় দৃষ্টিনন্দন মডেল মসজিদ নির্মাণ করা হয়েছে। ইতোমধ্যে মসজিদের শতভাগ নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এখন শুধু উদ্বোধনের অপেক্ষা। আশাকরি আগামী ডিসেম্বরের যেকোন সময়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রটি আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন ঘোষণা করবেন।