তেঁতুলিয়া প্রতিনিধি : পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় ভুয়া পুলিশ পরিচয় দেয়া একজনকে আটক করেছে তেঁতুলিয়া মডেল থানা পুলিশ।

আটককৃত ব্যক্তির নাম লালচান পালক (৩২)। তিনি দেবীগঞ্জ উপজেলার সোনাপাতা নতুনবন্দর সরকার পাড়া গ্রামের ওমর আলী (কান্ত মিয়া) পুত্র।

আসামী লালচান পালক সহ কয়েক ব্যক্তি ২নং তিরনইহাট ইউপির হাকিমপুর গ্রামে পুলিশ পরিচয়ে জনৈক মোঃ শহিদুল ইসলাম এর বসতবাড়ী তল্লাশী করার প্রস্তুতি গ্রহণ করে।

লোকজনের সন্দেহ হইলে স্থানীয় লোকজন তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করে। তাদের কথাবার্তা সন্দেহজনক হইলে স্থানীয় লোকজন তাদেরকে চ্যালেঞ্জ করে। তাৎক্ষণিকভাবে পুলিশ পরিচয় প্রদানকারী ০৩ প্রতারক দৌড়াইয়া ঘটনাস্থল ত্যাগ করায় সময় স্থানীয় লোকজন উপরোক্ত আসামী লালচানকে আটক করেন। অপর ০২ জন আসামী কৌশলে দৌড়াইয়া ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।

ঘটনাস্থলে তেঁতুলিয়া মডেল থানার উপস্থিত সাক্ষীদের সম্মুখে গ্রেফতারকৃত আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদ করিলে সে জানায় যে, সে সহ পলাতক আসামী ২। মোঃ আজিজুর রহমান (৩৫) পিতা-অজ্ঞাত, সাং তিরনই ৩। মোঃ আঃ রহমান (৩০) পিতা- অজ্ঞাত, সাং- বাংলাবান্ধা, উভয়ের তেঁতুলিয়া উপজেলার বাসিন্দা।

গ্রেফতারকৃত আসামী মোঃ লালচাঁন বিরুদ্ধে ১। (2RW8) পঞ্চগড় এর পঞ্চগড় সদর থানার জি আর নং-১৪৯/১০, তারিখ- ১৩ জুলাই, ২০১০; ধারা-৪03/20 পেনাল কোড ২। (T61E) পঞ্চগড় এর দ্বেবীগঞ্জ থানার এফআইআর নং-৩, তারিখ- ০৯ জানুয়ারি, ২০০৮; ধারা ১৪৩/৪৪৮/৩২৩/৩৭৯/৩৫৪/৫০৬/১১৪ পেনাল কোড-১৮৬০; ৩। ( 2MADN) পঞ্চগড় এর দ্বেবীগঞ্জ থানার এফআইআর নং-১৩/১৬৪, তারিখ- ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ধারা- ১৯(১) এর ৯(ক) ১৯৯০ সালের মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন-8। (J2U7) পঞ্চগড় এর বোদা থানার জি আর নং-৪৩/১৩, তারিখ- ২২ মার্চ, ২০১৩, ধারা- ৪৬১/৩৮০ পেনাল কোড-১৮৬০, ৫। (2UGX2) পঞ্চগড় এর দ্বেবীগঞ্জ থানার এফআইআর নং-১১/১১, তারিখ- ২৩ জানুয়ারি, ধারা- ১৯(১) এর ৭(ক) ১৯৯০ সালের মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন ৬। (1Y3A6) পঞ্চগড় এর তেঁতুলিয়া থানার এফআইআর নং-১২/৯৮, তারিখ- ১৭ জুন, ২০২২ ধারা- ৪৫৪/৩৮০ পেনাল কোড-১৮৬০; ৭। ( 1887T) পঞ্চগড় এর দেবীগঞ্জ থানার এফআইআর নং-৪/১৬, তারিখ- ০৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ধারা- ৩৬(১) সারণির ১৯(ক) মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন, ২০১৮, ৮ (1674C) পঞ্চগড় এর দেবীগঞ্জ থানার এফআইআর নং-৬/১৪৬, তারিখ- ১৪ অক্টোবর, ২০১৯; সময়- ১১.২৫ ঘটিকায় ধারা- ৩৬(১) সারণির ১০(ক) মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন, ২০১৮; তদন্তাধীন/বিজ্ঞ আদালতে বিচারাধীন।

তেঁতুলিয়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ আবু সাঈদ চৌধুরী বলেন, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে ফোর্স পাঠাই। সেখানে লালচানকে গ্রেফতার করে তেঁতুলিয়া মডেল থানা আনা হয়। পরে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে আসামি তার সত্যতা স্বীকার করলে তার বিরুদ্ধ মামলা রুজু করে পঞ্চগড়ে প্রেরণ করা হয়।