তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি : সিরাজগঞ্জের তাড়াশে জেলা পরিষদ নির্বাচনে এক সদস্য পদপ্রার্থীর বিতরণ করা খিচুড়ি খেয়ে ১০ জন অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বলে অভিযোগ করা হয়েছে। বর্তমানে অসুস্থরা সবাই তাড়াশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তাড়াশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আরএমও ডা: রাকিব হাসান।

ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার বারুহাস ইউনিয়নের কুসুম্বী গ্রামে।

এলাকাবাসীর সূত্রে জানা যায়, সিরাজগঞ্জ জেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে বারুহাস ইউনিয়নের কুসুম্বী গ্রামের আলহাজ্ব আবদুর রাজ্জাকের ছেলে ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শরিফুল ইসলাম তাজফুল গত বুধবার রাতে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তি, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও সদস্যদের সাথে মতবিনিময় করেন। পরে তাদের সৌজন্যে খিচুড়ি ভোজের আয়োজন করা হয়।

পরে ওই খিচুড়ি খেয়ে বারুহাস ইউনিয়নের ৪, ৫, ৬ নং ওয়ার্ডের নারী ইউপি সদস্য রিনা খাতুন, চৌবাড়িয়া গ্রামের আমজাদ হোসেনের স্ত্রী শিউলি খাতুন (২৫), আশরাফুল ইসলামের স্ত্রী রোজিনা খাতুন (২৭), জয়নাল আবেদীন স্ত্রী অমেদান (৫৬), রহিজ উদ্দিন ছেলে আমজাদ (৩০) ও মৃত নাজিম উদ্দিনের ছেলে জয়নাল (৬২) অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাদের বমি ও পাতলা পায়খানা শুরু হলে পরিবারের লোকজন তাদের চিকিৎসার জন্য তাড়াশ হাসপাতালে ভর্তি করে। বর্তমানে তাদের চিকিৎসা চলছে।

এ ব্যাপারে জেলা পরিষদ নির্বাচনে সদস্য পদপ্রার্থী শরিফুল ইসলাম তাজফুল বলেন, আমি চক্রান্তের শিকার। গত বুধবার রাতে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানসহ সকল সদস্য সেখানে উপস্থিত ছিলেন। অথচ তিন দিন পর ৮/১০ জন অসুস্থ। আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র চলছে।

এ বিষয়ে তাড়াশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক ডা: রাকিব হাসান বলেন, কয়েকজন রোগী খাদ্যে বিষক্রিয়ায় অসুস্থ হয়ে কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছেন। তাদের চিকিৎসা চলছে। তবে তারা শঙ্কামুক্ত রয়েছেন।

এ ব্যাপারে তাড়াশ থানার ওসি শহিদুল ইসলাম জানান, অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।