ঝালকাঠির ধানসিঁড়ি নদীর উপর প্রায় ২০ বছর যাবৎ ব্রিজটি অর্ধ-নির্মিত অবস্থায় পড়ে আছে       

কাজী খলিলুর রহমান, ঝালকাঠি প্রতিনিধি : ঝালকাঠিতে জীবনানন্দ দাশের শিল্প সাহিত্যের অমর ধানসিঁড়ির নদীর উপর প্রায় ২০ বছর যাবৎ অর্ধ নির্মিত অবস্থায় ব্রিজটি পরে আছে। ঝালকাঠি জেলার নলছিটি উপজেলায় নাচনমহল ভারানি খালের উপর একই প্রকল্পভূক্ত আরও ১ টি ব্রিজ একই অবস্থায় পরে রয়েছে।

এলাকাবাসি দাবি করেছে সরকার আমলে দেশের উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ মধ্য আয়ের দেশ থেকে উন্নত দেশের পথে এগিযে চলছে সেখানে এই ব্রিজটি ২০ বছর ধরে অর্ধ নির্মিত অবস্থায় পরে থাকা এবং মানুষকে উন্নয়ন বঞ্চিত রাখা দুঃখজনক। এলাকার মানুষ দ্রুত ব্রিজটি নির্মান শেষ করার জন্য দাবি করেছে।

২০০১ সালে বিএনপি সরকার আমলে এলজিইডি বিভাগ ডিএফআইডি প্রকল্পের আওতায় একই ১০০ মিটিার দৈর্ঘের ২ টি ব্রিজ প্রকল্পভ‚ক্ত করে। ৫৪ লক্ষ টাকা করে ব্রিজের ভীত নির্মান করার পরে ডেনমার্ক সরকার অর্থায়ন তুলে নেয়। বাংলাদেশের ভিবিন্ন জেলায় একই ধরণের প্রকল্পভ‚ক্ত আরও কিছু সংক্ষক ব্রিজ নির্মানের জন্য ডেনমার্ক সরকার এই প্রকল্পে অর্থায়ন করেছিল।

কিন্তু তৎকালিন বিএনপি ও জামাত জোট সরকারের আমলে এই প্রকল্পে দূর্নীতির কারণে ব্রিজের উপর বেইলি অবকাঠামো সরঞ্জাম সরবারহ না করে ডেনমার্ক সরকার অর্থায়ন বন্ধ করে দেয় এবং সেই থেকে এই ব্রিজগুলি অর্ধ -নির্মিত অবস্থায় দাড়িয়ে রয়েছে।

এলজিডি বিভাগের একটি সূত্র দাবি করেছে এই ব্রিজের ভীট ঠিক রেখে এর নির্মান কাজ সম্পন্ন করা যাবে কিন্তু এব্যপারে কোন পদক্ষেপ গ্রীহিত হয়নি। বর্তমানে এলজিডি বিভাগের বেইলি ব্রিজ নির্মান করার নির্দেশনা না থাকায় গার্ডার ব্রিজ প্যাটেনে নকশা সংযোজন করে নির্মান করতে হবে। এলাকার মানুষের যাতায়াতের সুবিধাসহ উপজেলা ভিত্তিক সংযোগ সেতু হিসাবে এই প্রকল্প বাস্তবায়নের উদ্যেগ নেওয়া হয়েছিল।

এলাকাবাসি এই গুরুত্বপূর্ন ব্রিজ ২টি নির্মানের জন্য বিভিন্ন সময় এলজিইডি বিভাগ সহ এলাকার সংসদ সদস্যকে অবহিত করেছেন। এবং ব্রিজ ২টি সমাপ্ত করার জন্য বর্তমানে সচ্চার দাবি করা হচ্ছে। এলজিইডি বিভাগের সহকারি প্রকৌসরি মোঃ নুর-উস-শামস জানান এটি অনেক পূর্বেও প্রকল্প। এই প্রকল্প সম্পর্কে তার জানা নেই। পুরানো ফাইল খুজে এ ব্যপারে দেখতে হবে।