কাজী খলিলুর রহমান, ঝালকাঠি প্রতিনিধি : ঝালকাঠি জেলার মাঠ ঘাট এখন বোরো’র চারায় সবুজ হয়ে উঠেছে। ঝালকাঠি জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর চলতি ২০২১-২০২২ রবি ফসল উৎপাদন মৌসুমে বোরো চাষে ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করে। রোপা আমনের বাম্পার ফলনের পর জেলার কৃষকরা এখন বোরো ধানের চারা রোপণ পরবর্তী পরিচর্যা নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন।

ঝালকাঠি জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্র জানায়, জেলায় ঝালকাঠি চলতি ২০২১-২০২২ নিবিড় বার্ষিক ফসল উৎপাদন কর্মসূচির আওতায় এবার ১২ হাজার ৬ শ ৭৭ হেক্টর জমিতে বোরো চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।

এরমধ্যে রয়েছে উচ্চ ফলনশীল (উফশী) জাতের ১০ হাজার ৭৬ শ ৬৭ হেক্টর ও হাইব্রিড জাতের রয়েছে ১ হাজার ৯১০ হেক্টর জমি। এতে উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ২ লাখ ৫৫ হাজার ৯.০৮ মেট্রিক.টন। বোরো ধানের চারা রোপণ কার্যক্রম এখন অব্যাহত রয়েছে।

স্থানীয় কৃষি বিভাগের সার্বিক তত্ত্বাবধানে জেলায় রোপণ করা বোরো ধানের মধ্যে রয়েছে বিআর- ১৬, ২৮, বিআর-২৯ ও ব্রি-ধান ৫০, ৫৮ ও ৫৯। কৃষকদের মাঝে উন্নত জাতের বোরো বীজ সরবরাহ করেছে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন। নিজস্ব বিক্রয় কেন্দ্রসহ ডিলারের মাধ্যম বীজ বিক্রি সম্পন্ন করা হয়।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মনিরুল ইসলাম জানান, বোরো চাষ সফল করতে বর্তমানে জেলার কৃষকরা বোরো ধানের পরিচর্যা করছেন কৃষি বিভাগের সার্বিক তত্ত্বাবধানে।জেলায় সারের মজুদ সন্তোষজনক পর্যায়ে রয়েছে বলেও জানান তিনি।

এ ছাড়া বংলাদেশ কৃষি ব্যাংকসহ অন্যান্য বানিজ্যিক ব্যাংক বোরো চাষের জন্য সহজ শর্তে কৃষকদের ঋণ প্রদান করেছে। অধিক হারে খাদ্য উৎপাদন নিশ্চিত করার জন্য বিএডিসি (বীজ) কৃষকদের মাঝে উচ্চ ফলনশীল জাতের বীজ সরবরাহ করে।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের জেলায় বোরো চাষ সফল করতে কৃষক মাঠ স্কুলের মাধ্যমে কৃষকদের প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ ও উপকরণ সরবরাহ করা হচ্ছে বলে জানান, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মনিরুল ইসলাম।