কাজী খলিলুর রহমান, ঝালকাঠি প্রতিনিধি : উপকূলীয় জেলা ঝালকাঠি তথা দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষের দুই যুগেরও বেশি সময়ের লালিত স্বপ্ন পদ্মা বহুমুখী সেতু। আগামী ২৫ জুন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পদ্মা বহুমুখী সেতু শুভ উদ্বোধন করবেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পদ্মা সেতু শুভ উদ্বোধনী অনুষ্ঠান মাল্টিমিডিয়া প্রচারসহ ঝালকাঠিতে নানা আয়োজনে জমকালো উদ্বোধনী অনুষ্ঠান পালন করবে।

এ উপলক্ষে আজ বুধবার সকাল ১০টায় জেলা প্রশাসকের কার্যালয় সভাকক্ষে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলা প্রশাসক মো.জোহর আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খান সাইফুল্লাহ পনির,জেলা আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি ও সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান খান আরিফুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) প্রশান্ত কুমার দে,অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন, নলছিটি পৌরসভা মেযর আব্দুল ওযাহেদ খান, পৌর প্যানেল মেয়র তরুন কুমার কর্মকার, কাউন্সিলর হাবিবুর রহমান হাবিল। ২৫ জুন পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে ঝালকাঠিতে শেখ রাসেল মিনি ষ্টেডিয়ামে সাজসজ্জা,আতোসবাজি,পায়রা ও বেলুন উড়িয়ে আলোচনা সভা,সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

বর্তমান সরকারের নেওয়া মেগা প্রকল্পগুলোর অন্যতম একটি পদ্মা সেতু। যেটি দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষের দুই যুগেরও বেশি সময়ের লালিত স্বপ্ন। আগামী ২৫ জুন জনসাধারণের জন্য খুলে দেওয়া হবে সেতুটি। এই সেতু চালুর ফলে দেশের অর্থনীতিতে বড় প্রভাব পড়বে।

দক্ষিণের জেলা ঝালকাঠিতে ব্যবসা-বাণিজ্যেও প্রসার ঘটবে। ইতোমধ্যেই পদ্মা সেতু কেন্দ্র করে বিসিকে গড়ে উঠছে নতুন নতুন শিল্পকারখানা। পদ্মা সেতুর কারণে দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম সমুদ্রবন্দর মোংলা গতিশীল হবে। ঝালকাঠি থেকে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের ব্যবসায়ীরা স্বল্প সময়ে পণ্য পরিবহন করে মোংলা বন্দরের মাধ্যমে রফতানি ও আমদানি করতে পারবে। ঝালকাঠির অন্যতম শীতল পাটি,পেয়ারা,আমড়া, গামছা,লবন শিল্পখাতে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জণে ভূামকা রাখবে। পদ্মা সেতু জন্য এই খাতে রফতানি আয় আরও বাড়বে।